ঢাকা 7:55 pm, Saturday, 28 January 2023

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি?

  • আপডেট সময় : 12:07:24 pm, Friday, 26 August 2022 120 বার পড়া হয়েছে

আসসালামুআলাইকুম বন্ধুরা ।আশা করি তোমরা সবাই ভালো আছ। আজকে আমরা রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান সম্পর্কে জানব। রোবটিক্স এর মৌলিক শাখা সমূহ এর মধ্যে কৃত্তিম বুদ্ধি মাত্রা, প্রকৌশল  ও দর্শন অন্যতম। রোবটবিজ্ঞান হল রোবট বা কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত যন্ত্র সমূহ। ডিজাইন ও উৎপাদন সংক্রান্ত বিদ্যা। রোবটিক্স হল রোবট টেকনোলজির একটি শাখা, যেখানে রোবটের গঠ্ন কাজ, বৈশিষ্ট্য নিয়ে কাজ করা হয়।

রোবট;

যুক্তরাষ্ট্রের  জোসেফ এর এঞ্জেল বার্গার রোবটের সূচনা দেন। ১৯৯৭  সালের ৪  জুলাই,  মঙ্গল গ্রহের অবতরণ কারি নভোযান পাথ  ফাউন্ডার এর  পাঠানো একটি রোবটের নাম ‘ সুজানার’ । এই রোবটের ওজন মাত্র ২২  পাউন্ড এবং রোবটটি মঙ্গল গ্রহের শিলা পরীক্ষা, চিত্র প্রেরণ এবং অন্যান্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা কাজ করতে পারলিস পোলিশ শব্দ Robotnic থেকে Robot  শব্দ এসেছে ।রোবটের কা.৫০ দশক থেকে শুরু হয়।

এ সময়  জর্জ   সি,  ডেভল তৈরি করেন পি প্রোগ্রামার ডিভাইস যা কতগুলো কাজ ক্রমানুসারে করতে পারে । ৫০  দশকেই রোবট তৈরির প্রতিষ্ঠান  এউনিমেশন ইনক্র গঠন হয়। ৬০ এর দশকে  তৈরি করা হয় প্রোগ্রাম উপযোগী শক্তিশালী রোবট।

রোবট শব্দটির বাংলা অর্থ হলো মানব যন্ত্র বা যন্ত্রের মানব। রোবট হলো কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত বা প্রোগ্রাম যন্ত্র বা মানব যন্ত্র যা মানুষের অনেক না পারা  কাজ করতে সক্ষম। প্রতিটি রোবট তাকে দেওয়া নির্দেশিত কাজটি করতে সক্ষম। একটি রোবট তৈরি করতে হয় কষ্টসাধ্য এবং  ব্যয়বহুল । 

রোবট অত্যান্ত দ্রুত,  ক্লান্তিহীন এবং নিখুঁত কর্মক্ষম যন্ত্র। কঠোর শারীরিক পরিশ্রমের বা বিপদজনক ও জটিল কাজগুলো রোবটের সাহায্যে করা যায়। কিন্তু কিছু কিছু রোবট শুধু প্রোগ্রাম অনুসারে কাজ করে আবার অনেকগুলো কে দূর থেকে লেজার রশ্মি বা রিডিং সিগন্যাল এর সাহায্যে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। আবার কিছু কিছু রোবট শুধু মানুষের উদ্দীপনায় সাড়া দিতে সক্ষম। যেমন ‘ কিসমত’  এমন একটি রোবট যা মানুষের বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গি বুঝতে পারে। এবং তার উপর ভিত্তি করে নিজের নানা রকম অঙ্গভঙ্গি করতে সক্ষম বা  পারে।

 

 এবার আশা যাক রোবটের বিভিন্ন উপাদানসমূহ বা অংশসমূহ

 ১।  পাওয়ার সিস্টেম

২।  একচুয়াটর

৩।  অনুভূতি

৪।  মুভে  বল বডি

৫।  ইলেকট্রনিক সার্কিট

৬।  প্রোগ্রাম কৃত মস্তিষ্ক

৭। ম্যানিপুলেশন, ইত্যাদি

 

  ১।  পাওয়ার সিস্টেম; 

নিয়ন্ত্রণ করার জন্য লেড এসিড ব্যাটারি ব্যবহৃত হয়। অর্থাৎ লেড এসিড  দিয়ে তৈরি রিচার্জেবল ব্যাটারি দিয়ে রোবটের পাওয়ার দেওয়া হয়।

২।  একচুয়াটর; 

একচুয়াটর হল এমন এক  ধরনের মোটর যা স্বয়ংক্রিয় ভাবে ঘুরতে ও যান্ত্রিক ভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

৩।  অনুভূতি; 

মানুষের ন্যায় অনুভূতি সৃষ্টির জন্য রোবট এ কিছু সেন্সর ব্যবহারিত হয়। এর ফলে রোবট সামনের ছবি বা পিছনের ছবি নিতে পারে এবং সংরক্ষণ করতে পারে।৩৬০  ডিগ্রী অ্যাঙ্গেলে বা কোনে ঘুরতে পারে অর্থাৎ রোবট তার চারদিকে ঘুরতে পারে ও ছবি সংরক্ষণ করতে পারে। তাই, রোবটকে সংবেদনশীল যন্ত্র বলা হয়। 

 

৪। মুভে  বল বডি;

রোবটের চলাফেরা করার জন্য যান্ত্রিক চাকা সংযুক্ত থাকে। রোবটের পা নামে পরিচিত। একে মুভে বল বডি বলে।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

৫।  ইলেকট্রনিক সার্কিট; 

রোবটের বিভিন্ন ধরনের ইলেকট্রনিক সার্কিট ব্যবহৃত হয়। যাদের সাহায্যে রোবট বৈদ্যুতিক সংযোগের কাজটি সম্পন্ন রূপে পরিচালিত হয়।

৬।   প্রোগ্রাম কৃত মস্তিষ্ক; 

রোবটের মস্তিষ্ক রোবটকে নিয়ন্ত্রিত করে। এই মস্তিষ্কে আগে থেকে বিভিন্ন ধরনের প্রোগ্রাম সংরক্ষিত থাকে। তাই রোবটের মস্তিষ্ককে প্রোগ্রাম কৃত মস্তিষ্ক বলা  হয়।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

৭। ম্যানিপুলেশন ;

ম্যানিপুলেশন মানে হচ্ছে কার্য সম্পাদন। রোবট যার সাহায্যে এর আশেপাশের বস্তুর অবস্থান পরিবর্তন করে তাকে ম্যানিপুলেশন বলে।

উপরুক্ত উপাদান সমূহের মাধ্যমেই রোবট  তার নির্দেশিত কাজ সম্পাদনা করেন। অর্থাৎ রোবটের ইনপুট যন্ত্রপাতি যেমন; বিভিন্ন ধরনের সেন্সর এর সাহায্যে বিভিন্ন পরিবেশ থেকে ইনপুট তথ্য নেয়। এবং প্রোগ্রামের মাধ্যমে প্রক্রিয়াকরণ এর পর একচুয়াটর এর মাধ্যমে আউটপুট তথ্য প্রকাশিত বা প্রদর্শিত করে থাকে। 

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

 এবার আসা যাক রোবট এর সুবিধা সমূহ;

১,  রোবট ব্যবহার করার  ফলেই বিভিন্ন ধরনের অনুসন্ধান, গবেষণা, নতুন নতুন ক্ষেত্র আবিষ্কারের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে।

২,  যুদ্ধ ক্ষেত্রে  যুদ্ধ  জানের  ড্রাইভার এর বিকল্প হিসেবে রোবট ব্যবহৃত হয়।

৩,  মানুষের বিভিন্ন বিনোদন এর রোবট এর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছেন।

৪,  বাসা  বাড়িতে বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে রোবট ব্যবহৃত হচ্ছে।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

৫,  উন্নত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বর্তমান রোবটের সাহায্যে নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনা নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে।

৬,  শিল্প, কঠোর শারীরিক পরিশ্রম এর বিপদজনক ও জটিল কাজগুলো রোবটের সাহায্যে করা হচ্ছে।

৭,  বিশ্বের বিভিন্ন দিছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিপদজনক পরিস্থিতি তে মোকাবেলায় রোবট কে ব্যবহার করা হচ্ছে।

৮,  রোবট  অতি ক্ষুদ্র মাইক্রো  সার্কিট উপাদান   অবিশ্বাস্য ভাবে পরীক্ষা করতে সক্ষম, যা মানুষের পক্ষে অসম্ভব।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

৯,  বর্তমানে কম্পিউটার এইডেড  মেনু কেসারিং এ রোবটের ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

১০,  পারমাণবিক  কেন্দ্রে ক্ষতিকর তেজস্ক্রিয়তা ঝুঁকিপূর্ণ কাজগুলো সঠিকভাবে করার জন্য রোবটকে ব্যাপকভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

এবার আসা যাক রোবটের অসুবিধা;

১,  রোবট প্রোগ্রাম  কৃত কাজ ছাড়া অন্যান্য কাজ নিজের ইচ্ছামত করতে অক্ষম।

২,  রোবট ব্যবহারিত ডিভাইস সমূহ বা যন্ত্র সমূহ তুলনামূলক ভাবে অনেক বেশি দামি।

৩,  রোবট পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ এর  জন্য  দক্ষ জনবল প্রয়োজন।

৪,  রোবটকে সচল রাখতে অধিক বিদ্যুৎ প্রয়োজন।

 

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

আরও পড়ুন –

এম এম কিট বা অ্যাবো কিট এর ব্যবহার, খওয়ার নিয়ম এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

গর্ভবতী মহিলার সকল ওষুধ।

ই -পর্চা কি? খতিয়ান নম্বর, আবেদন করার নিয়মঃ, ও যাচাই ।

ট্যাগস :

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি?

আপডেট সময় : 12:07:24 pm, Friday, 26 August 2022

আসসালামুআলাইকুম বন্ধুরা ।আশা করি তোমরা সবাই ভালো আছ। আজকে আমরা রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান সম্পর্কে জানব। রোবটিক্স এর মৌলিক শাখা সমূহ এর মধ্যে কৃত্তিম বুদ্ধি মাত্রা, প্রকৌশল  ও দর্শন অন্যতম। রোবটবিজ্ঞান হল রোবট বা কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত যন্ত্র সমূহ। ডিজাইন ও উৎপাদন সংক্রান্ত বিদ্যা। রোবটিক্স হল রোবট টেকনোলজির একটি শাখা, যেখানে রোবটের গঠ্ন কাজ, বৈশিষ্ট্য নিয়ে কাজ করা হয়।

রোবট;

যুক্তরাষ্ট্রের  জোসেফ এর এঞ্জেল বার্গার রোবটের সূচনা দেন। ১৯৯৭  সালের ৪  জুলাই,  মঙ্গল গ্রহের অবতরণ কারি নভোযান পাথ  ফাউন্ডার এর  পাঠানো একটি রোবটের নাম ‘ সুজানার’ । এই রোবটের ওজন মাত্র ২২  পাউন্ড এবং রোবটটি মঙ্গল গ্রহের শিলা পরীক্ষা, চিত্র প্রেরণ এবং অন্যান্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা কাজ করতে পারলিস পোলিশ শব্দ Robotnic থেকে Robot  শব্দ এসেছে ।রোবটের কা.৫০ দশক থেকে শুরু হয়।

এ সময়  জর্জ   সি,  ডেভল তৈরি করেন পি প্রোগ্রামার ডিভাইস যা কতগুলো কাজ ক্রমানুসারে করতে পারে । ৫০  দশকেই রোবট তৈরির প্রতিষ্ঠান  এউনিমেশন ইনক্র গঠন হয়। ৬০ এর দশকে  তৈরি করা হয় প্রোগ্রাম উপযোগী শক্তিশালী রোবট।

রোবট শব্দটির বাংলা অর্থ হলো মানব যন্ত্র বা যন্ত্রের মানব। রোবট হলো কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত বা প্রোগ্রাম যন্ত্র বা মানব যন্ত্র যা মানুষের অনেক না পারা  কাজ করতে সক্ষম। প্রতিটি রোবট তাকে দেওয়া নির্দেশিত কাজটি করতে সক্ষম। একটি রোবট তৈরি করতে হয় কষ্টসাধ্য এবং  ব্যয়বহুল । 

রোবট অত্যান্ত দ্রুত,  ক্লান্তিহীন এবং নিখুঁত কর্মক্ষম যন্ত্র। কঠোর শারীরিক পরিশ্রমের বা বিপদজনক ও জটিল কাজগুলো রোবটের সাহায্যে করা যায়। কিন্তু কিছু কিছু রোবট শুধু প্রোগ্রাম অনুসারে কাজ করে আবার অনেকগুলো কে দূর থেকে লেজার রশ্মি বা রিডিং সিগন্যাল এর সাহায্যে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। আবার কিছু কিছু রোবট শুধু মানুষের উদ্দীপনায় সাড়া দিতে সক্ষম। যেমন ‘ কিসমত’  এমন একটি রোবট যা মানুষের বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গি বুঝতে পারে। এবং তার উপর ভিত্তি করে নিজের নানা রকম অঙ্গভঙ্গি করতে সক্ষম বা  পারে।

 

 এবার আশা যাক রোবটের বিভিন্ন উপাদানসমূহ বা অংশসমূহ

 ১।  পাওয়ার সিস্টেম

২।  একচুয়াটর

৩।  অনুভূতি

৪।  মুভে  বল বডি

৫।  ইলেকট্রনিক সার্কিট

৬।  প্রোগ্রাম কৃত মস্তিষ্ক

৭। ম্যানিপুলেশন, ইত্যাদি

 

  ১।  পাওয়ার সিস্টেম; 

নিয়ন্ত্রণ করার জন্য লেড এসিড ব্যাটারি ব্যবহৃত হয়। অর্থাৎ লেড এসিড  দিয়ে তৈরি রিচার্জেবল ব্যাটারি দিয়ে রোবটের পাওয়ার দেওয়া হয়।

২।  একচুয়াটর; 

একচুয়াটর হল এমন এক  ধরনের মোটর যা স্বয়ংক্রিয় ভাবে ঘুরতে ও যান্ত্রিক ভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

৩।  অনুভূতি; 

মানুষের ন্যায় অনুভূতি সৃষ্টির জন্য রোবট এ কিছু সেন্সর ব্যবহারিত হয়। এর ফলে রোবট সামনের ছবি বা পিছনের ছবি নিতে পারে এবং সংরক্ষণ করতে পারে।৩৬০  ডিগ্রী অ্যাঙ্গেলে বা কোনে ঘুরতে পারে অর্থাৎ রোবট তার চারদিকে ঘুরতে পারে ও ছবি সংরক্ষণ করতে পারে। তাই, রোবটকে সংবেদনশীল যন্ত্র বলা হয়। 

 

৪। মুভে  বল বডি;

রোবটের চলাফেরা করার জন্য যান্ত্রিক চাকা সংযুক্ত থাকে। রোবটের পা নামে পরিচিত। একে মুভে বল বডি বলে।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

৫।  ইলেকট্রনিক সার্কিট; 

রোবটের বিভিন্ন ধরনের ইলেকট্রনিক সার্কিট ব্যবহৃত হয়। যাদের সাহায্যে রোবট বৈদ্যুতিক সংযোগের কাজটি সম্পন্ন রূপে পরিচালিত হয়।

৬।   প্রোগ্রাম কৃত মস্তিষ্ক; 

রোবটের মস্তিষ্ক রোবটকে নিয়ন্ত্রিত করে। এই মস্তিষ্কে আগে থেকে বিভিন্ন ধরনের প্রোগ্রাম সংরক্ষিত থাকে। তাই রোবটের মস্তিষ্ককে প্রোগ্রাম কৃত মস্তিষ্ক বলা  হয়।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

৭। ম্যানিপুলেশন ;

ম্যানিপুলেশন মানে হচ্ছে কার্য সম্পাদন। রোবট যার সাহায্যে এর আশেপাশের বস্তুর অবস্থান পরিবর্তন করে তাকে ম্যানিপুলেশন বলে।

উপরুক্ত উপাদান সমূহের মাধ্যমেই রোবট  তার নির্দেশিত কাজ সম্পাদনা করেন। অর্থাৎ রোবটের ইনপুট যন্ত্রপাতি যেমন; বিভিন্ন ধরনের সেন্সর এর সাহায্যে বিভিন্ন পরিবেশ থেকে ইনপুট তথ্য নেয়। এবং প্রোগ্রামের মাধ্যমে প্রক্রিয়াকরণ এর পর একচুয়াটর এর মাধ্যমে আউটপুট তথ্য প্রকাশিত বা প্রদর্শিত করে থাকে। 

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

 এবার আসা যাক রোবট এর সুবিধা সমূহ;

১,  রোবট ব্যবহার করার  ফলেই বিভিন্ন ধরনের অনুসন্ধান, গবেষণা, নতুন নতুন ক্ষেত্র আবিষ্কারের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে।

২,  যুদ্ধ ক্ষেত্রে  যুদ্ধ  জানের  ড্রাইভার এর বিকল্প হিসেবে রোবট ব্যবহৃত হয়।

৩,  মানুষের বিভিন্ন বিনোদন এর রোবট এর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছেন।

৪,  বাসা  বাড়িতে বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে রোবট ব্যবহৃত হচ্ছে।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

৫,  উন্নত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বর্তমান রোবটের সাহায্যে নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনা নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে।

৬,  শিল্প, কঠোর শারীরিক পরিশ্রম এর বিপদজনক ও জটিল কাজগুলো রোবটের সাহায্যে করা হচ্ছে।

৭,  বিশ্বের বিভিন্ন দিছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিপদজনক পরিস্থিতি তে মোকাবেলায় রোবট কে ব্যবহার করা হচ্ছে।

৮,  রোবট  অতি ক্ষুদ্র মাইক্রো  সার্কিট উপাদান   অবিশ্বাস্য ভাবে পরীক্ষা করতে সক্ষম, যা মানুষের পক্ষে অসম্ভব।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

৯,  বর্তমানে কম্পিউটার এইডেড  মেনু কেসারিং এ রোবটের ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

১০,  পারমাণবিক  কেন্দ্রে ক্ষতিকর তেজস্ক্রিয়তা ঝুঁকিপূর্ণ কাজগুলো সঠিকভাবে করার জন্য রোবটকে ব্যাপকভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

এবার আসা যাক রোবটের অসুবিধা;

১,  রোবট প্রোগ্রাম  কৃত কাজ ছাড়া অন্যান্য কাজ নিজের ইচ্ছামত করতে অক্ষম।

২,  রোবট ব্যবহারিত ডিভাইস সমূহ বা যন্ত্র সমূহ তুলনামূলক ভাবে অনেক বেশি দামি।

৩,  রোবট পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ এর  জন্য  দক্ষ জনবল প্রয়োজন।

৪,  রোবটকে সচল রাখতে অধিক বিদ্যুৎ প্রয়োজন।

 

রোবটিক্স বা রোবটবিজ্ঞান কি

আরও পড়ুন –

এম এম কিট বা অ্যাবো কিট এর ব্যবহার, খওয়ার নিয়ম এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

গর্ভবতী মহিলার সকল ওষুধ।

ই -পর্চা কি? খতিয়ান নম্বর, আবেদন করার নিয়মঃ, ও যাচাই ।