ঢাকা 11:53 am, Saturday, 4 February 2023

পাইথন কী? পাইথন এর সকল তথ্য। 2022

  • আপডেট সময় : 04:49:43 pm, Saturday, 6 August 2022 1225 বার পড়া হয়েছে

পাইথন কী এর সকলতথ্য-আজ এই পোস্টের মাধ্যমে জানতে পারবেন পাইথন কি, পাইথনের জন্ম ইতিহাস, বৈশিষ্ট্য, ব্যবহার ইত্যাদি নিয়ে। পাইথন, তাহলে শুরু করা যাক পাইথন কিঃ পাইথন (Python) হলো একটি বস্তু-সংশ্লিষ্ট বা অবজেক্ট -ওরিয়েন্ট সম্বলিত উচ্চস্তরের প্রোগ্রামিং ভাষা। প্রোগ্রামিং ভাষা দিয়ে কম্পিউটারের সাহায্যে অনেক জটিল কাজ করানো যায়। এখন পর্যন্ত অনেক প্রোগ্রামিং ভাষা তৈরি হয়েছে এবং নিত্যনতুন তৈরি হচ্ছে। তবে ববর্তমানে প্রোগ্রামিং ভাষা হিসেবে পাইথন প্রোগ্রামারদের কাছে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। পাইথন কী এর সকলতথ্য

পাইথনের জন্ম ইতিহাসঃ

পাইথন ভাষার জনক হলো গুইডো ভন রুযাম। তিনি ১৯৮৯ সালের ডিসেম্বর সালে প্রথম পাইথন তৈরি শুরু করেন। কিন্তু পাইথন বেশ জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করে ২০০০ সালে ২.৭ সংস্করণ চালু হবার পরে। এখন পাইথনে ২.৭ & ৩.৪ সংস্করণ চালু আছে।পাইথন কী?, এই ভাষার অনেক অংশের বিধিবদ্ধ ও আদর্শ থাকলেও ভাষাটিকে এখনও সম্পূর্ণ বিধিবদ্ধ করা হয় নি। পাইথন এর বিভিন্ন ভার্সন ও প্রকাশকালঃ এ পর্যন্ত পাইথন এর বেশ কয়েকটি ভার্সন তৈরি৷ করা হয়েছে। নিচে কয়েকটি ভার্সন ও তাদের প্রকাশকাল দেওয়া হলপাইথন কী? ভার্সন প্রকাশকাল

পাইথন কী এর সকলতথ্য

1. পাইথন ১.০ (প্রথম স্টাডার্ড প্রকাশনী)১৯৯৪ সালে।

2. পাইথন ১.৬ ( শেষ মাইনর ভার্সন)২০০০সালের ৫ই সেপ্টেম্বর।

3. পাইথন (লিস্ট এর সূচনা)২০০০ সালের ১৬ই অক্টোবর।

4. ২.৭ (শেষ মাইনর)২০১০ সালর ৩ই জুলাই

5. ৩.০২০০৮ সালের ৩ই সেপ্টেম্বর

6. ৩.৫ ( নিরাপত্তা সংশোধন)২০১৫সালের ১৩ই সেপ্টেম্বর

7. ৩.৬ (শেষ আপডেট)২০১৬ সালের ২৩ই ডিসেম্বর।

পাইথন ভাষার বৈশিষ্ট্যসমূহঃ

সিনট্যাক্সঃ এটি একটি সাধারণ ভাষা ও শেখা খুবই সহজ। পাইথন এর সিনট্যাক্স (syntax) খুবই সহজ ও পরিছন্ন। c++,c# & java ইত্যাদির তুলনায় সহজেই পাইথন প্রোগ্রাম লেখা ও পড়া যায়। প্রোগ্রামিংকে অনেক মজাদার করে তুলেছে এই পাইথন (Python) পাইথন।

পাইথন কী এর সকলতথ্য

পাইথন হলো ফ্রি ও ওপেনসোর্স।

বহনযোগ্যতাঃ এটি অধিকাংশ ওএস(OS= Operating System ) যেমন উইন্ডোজ, লিনাক্স ও ম্যাক ওএস এ নিজস্ব এপ্লিকেশনের মতই রান(run) করে পাইথন।

লাইব্রেরিঃ

সাধারণ সমস্যা সমাধানের জন্য পাইথন এর অনেক বড় লাইব্রেরি আছে। লাইব্রেরির কারণে কোডগুলো আর নতুন করে লিখতে হয় না। ওয়েব সার্ভারে MySQL ডেটাবেজ সংযোগ নিতে হলে import MySQL db এর মাধ্যমে MySQL db লাইব্রেরি ব্যবহার করা যেতে পারে।

অবজেক্ট-ওরিয়েন্টঃ পাইথনে সবকিছুই object. তাই অবজেক্ট-ওরিয়েন্ট ব্যবহার করে নিজের জ্ঞান দ্বারাই অনেক জটিল ও কঠিন সমস্যার সমাধান করা যায় পাইথন।

কোড সি ও জাভার তুলনায় পাইথনে অনেক ছোট কোড লিখতে হয়।

পাইথন এর মধ্যে রয়েছে ডিকশনারি(Library ) , লিস্ট (List), ও সেট (Set) এর মতো চমৎকার কাঠামো।

পাইথনের রয়েছে শক্তিশালী অনলাইন কমিউনিটি (community )। উপরের বৈশিষ্ট্যগুলার কারণেই পাইথন অনেক জনপ্রিয়।

পাইথন কী এর সকলতথ্য

পাইথন এর ব্যবহারঃ

বর্তমানে অনেক কাজেই পাইথন ব্যবহৃত হচ্ছে। নিচে তার মধ্যে থেকে কয়েকটি ব্যবহার উল্লেখ করা হল:

1. ওয়েব ভিত্তিক সফটওয়্যার তৈরি করতে পাইথন সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়।

2. অটোমেশন বা AI ( Artificial intelligence) সফটওয়্যার নির্মাণে।

3. মেশিন লার্নিং

4. বিগ ডাটা (Big Data)

5. সাইবার নিরাপত্তা

6. ওয়েব ক্রলার

7. তথ্য বিশ্লেষণ ( Data Analysis)

পাইথন কী এর সকলতথ্য

8. ন্যাচারাল ল্যাঙ্গুয়েজ প্রসেসিং।

9. বায়ো ইনফরমেটিক্স

10. হ্যাকিংঃ

হ্যাকিং কথাটির সাথে আমরা সবাই বেশ ভালোভাবেই পরিচিত। পাইথন ভাষা হ্যাকিংকে এক অন্য লেভেল এ নিয়ে গেছে। পাইথন ভাষা দিয়ে হ্যাকিং এর জন্য ছোটখাটো স্ক্রিপ্ট খুব সহজেই তৈরি করা যায় পাইথন। পাইথন দিয়ে লেখা এই স্ক্রিপ্ট গুলোর পারফর্মেন্স যথেষ্ট high। পাইথন কী পাইথনের পর্যাপ্ত নিজস্ব লাইব্রেরি থাকার কারণে অনেক হ্যাকিং টুলস কোড আগে থেকেই করা থাকে এবং সেগুলো খুব সহজেই ব্যাবহার করা যায়। পাইথনে হ্যাকাররা নিজেই দেখে নিতে পারে এটি কিভাবে কাজ করছে বা কাজ করে দিচ্ছে। তাই হ্যাকাররা পাইথনকে বিশ্বাস করতে পারে ভালোভাবেই পাইথন।

11. আরো অনেক জটিল ও কঠিন সমস্যার সমাধান করতে ব্যবহার করা হয় পাইথন।

পাইথন কী এর সকলতথ্য

বাংলাদেশও পাইথন ব্যবহার শুরু করেছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কতৃপক্ষ এর অটোমেশনের জন্য যে ” ওয়েব বেইজড ডেটাবেজ সফটওয়্যার” তৈরি করেছে তা পাইথন দিয়েই বানানো হয়েছে।

বেশ কয়েক বছর আগে জনপ্রিয় ছিল C language যেটা সারা বিশ্বের মাঝে ব্যবহার হয়েছে এবং এখনো হচ্ছে। এখন Technology আপডেট হওয়ায় Robotics & Artificial Intelligence ( AI ) & Cyber Security এর যুগে পাইথনই সেরা।

See More>>>

ই-সিম কী, সুবিধা ও অসুবিধা

পাইথন কী? পাইথন এর সকল তথ্য। 2022

আপডেট সময় : 04:49:43 pm, Saturday, 6 August 2022

পাইথন কী এর সকলতথ্য-আজ এই পোস্টের মাধ্যমে জানতে পারবেন পাইথন কি, পাইথনের জন্ম ইতিহাস, বৈশিষ্ট্য, ব্যবহার ইত্যাদি নিয়ে। পাইথন, তাহলে শুরু করা যাক পাইথন কিঃ পাইথন (Python) হলো একটি বস্তু-সংশ্লিষ্ট বা অবজেক্ট -ওরিয়েন্ট সম্বলিত উচ্চস্তরের প্রোগ্রামিং ভাষা। প্রোগ্রামিং ভাষা দিয়ে কম্পিউটারের সাহায্যে অনেক জটিল কাজ করানো যায়। এখন পর্যন্ত অনেক প্রোগ্রামিং ভাষা তৈরি হয়েছে এবং নিত্যনতুন তৈরি হচ্ছে। তবে ববর্তমানে প্রোগ্রামিং ভাষা হিসেবে পাইথন প্রোগ্রামারদের কাছে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। পাইথন কী এর সকলতথ্য

পাইথনের জন্ম ইতিহাসঃ

পাইথন ভাষার জনক হলো গুইডো ভন রুযাম। তিনি ১৯৮৯ সালের ডিসেম্বর সালে প্রথম পাইথন তৈরি শুরু করেন। কিন্তু পাইথন বেশ জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করে ২০০০ সালে ২.৭ সংস্করণ চালু হবার পরে। এখন পাইথনে ২.৭ & ৩.৪ সংস্করণ চালু আছে।পাইথন কী?, এই ভাষার অনেক অংশের বিধিবদ্ধ ও আদর্শ থাকলেও ভাষাটিকে এখনও সম্পূর্ণ বিধিবদ্ধ করা হয় নি। পাইথন এর বিভিন্ন ভার্সন ও প্রকাশকালঃ এ পর্যন্ত পাইথন এর বেশ কয়েকটি ভার্সন তৈরি৷ করা হয়েছে। নিচে কয়েকটি ভার্সন ও তাদের প্রকাশকাল দেওয়া হলপাইথন কী? ভার্সন প্রকাশকাল

পাইথন কী এর সকলতথ্য

1. পাইথন ১.০ (প্রথম স্টাডার্ড প্রকাশনী)১৯৯৪ সালে।

2. পাইথন ১.৬ ( শেষ মাইনর ভার্সন)২০০০সালের ৫ই সেপ্টেম্বর।

3. পাইথন (লিস্ট এর সূচনা)২০০০ সালের ১৬ই অক্টোবর।

4. ২.৭ (শেষ মাইনর)২০১০ সালর ৩ই জুলাই

5. ৩.০২০০৮ সালের ৩ই সেপ্টেম্বর

6. ৩.৫ ( নিরাপত্তা সংশোধন)২০১৫সালের ১৩ই সেপ্টেম্বর

7. ৩.৬ (শেষ আপডেট)২০১৬ সালের ২৩ই ডিসেম্বর।

পাইথন ভাষার বৈশিষ্ট্যসমূহঃ

সিনট্যাক্সঃ এটি একটি সাধারণ ভাষা ও শেখা খুবই সহজ। পাইথন এর সিনট্যাক্স (syntax) খুবই সহজ ও পরিছন্ন। c++,c# & java ইত্যাদির তুলনায় সহজেই পাইথন প্রোগ্রাম লেখা ও পড়া যায়। প্রোগ্রামিংকে অনেক মজাদার করে তুলেছে এই পাইথন (Python) পাইথন।

পাইথন কী এর সকলতথ্য

পাইথন হলো ফ্রি ও ওপেনসোর্স।

বহনযোগ্যতাঃ এটি অধিকাংশ ওএস(OS= Operating System ) যেমন উইন্ডোজ, লিনাক্স ও ম্যাক ওএস এ নিজস্ব এপ্লিকেশনের মতই রান(run) করে পাইথন।

লাইব্রেরিঃ

সাধারণ সমস্যা সমাধানের জন্য পাইথন এর অনেক বড় লাইব্রেরি আছে। লাইব্রেরির কারণে কোডগুলো আর নতুন করে লিখতে হয় না। ওয়েব সার্ভারে MySQL ডেটাবেজ সংযোগ নিতে হলে import MySQL db এর মাধ্যমে MySQL db লাইব্রেরি ব্যবহার করা যেতে পারে।

অবজেক্ট-ওরিয়েন্টঃ পাইথনে সবকিছুই object. তাই অবজেক্ট-ওরিয়েন্ট ব্যবহার করে নিজের জ্ঞান দ্বারাই অনেক জটিল ও কঠিন সমস্যার সমাধান করা যায় পাইথন।

কোড সি ও জাভার তুলনায় পাইথনে অনেক ছোট কোড লিখতে হয়।

পাইথন এর মধ্যে রয়েছে ডিকশনারি(Library ) , লিস্ট (List), ও সেট (Set) এর মতো চমৎকার কাঠামো।

পাইথনের রয়েছে শক্তিশালী অনলাইন কমিউনিটি (community )। উপরের বৈশিষ্ট্যগুলার কারণেই পাইথন অনেক জনপ্রিয়।

পাইথন কী এর সকলতথ্য

পাইথন এর ব্যবহারঃ

বর্তমানে অনেক কাজেই পাইথন ব্যবহৃত হচ্ছে। নিচে তার মধ্যে থেকে কয়েকটি ব্যবহার উল্লেখ করা হল:

1. ওয়েব ভিত্তিক সফটওয়্যার তৈরি করতে পাইথন সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়।

2. অটোমেশন বা AI ( Artificial intelligence) সফটওয়্যার নির্মাণে।

3. মেশিন লার্নিং

4. বিগ ডাটা (Big Data)

5. সাইবার নিরাপত্তা

6. ওয়েব ক্রলার

7. তথ্য বিশ্লেষণ ( Data Analysis)

পাইথন কী এর সকলতথ্য

8. ন্যাচারাল ল্যাঙ্গুয়েজ প্রসেসিং।

9. বায়ো ইনফরমেটিক্স

10. হ্যাকিংঃ

হ্যাকিং কথাটির সাথে আমরা সবাই বেশ ভালোভাবেই পরিচিত। পাইথন ভাষা হ্যাকিংকে এক অন্য লেভেল এ নিয়ে গেছে। পাইথন ভাষা দিয়ে হ্যাকিং এর জন্য ছোটখাটো স্ক্রিপ্ট খুব সহজেই তৈরি করা যায় পাইথন। পাইথন দিয়ে লেখা এই স্ক্রিপ্ট গুলোর পারফর্মেন্স যথেষ্ট high। পাইথন কী পাইথনের পর্যাপ্ত নিজস্ব লাইব্রেরি থাকার কারণে অনেক হ্যাকিং টুলস কোড আগে থেকেই করা থাকে এবং সেগুলো খুব সহজেই ব্যাবহার করা যায়। পাইথনে হ্যাকাররা নিজেই দেখে নিতে পারে এটি কিভাবে কাজ করছে বা কাজ করে দিচ্ছে। তাই হ্যাকাররা পাইথনকে বিশ্বাস করতে পারে ভালোভাবেই পাইথন।

11. আরো অনেক জটিল ও কঠিন সমস্যার সমাধান করতে ব্যবহার করা হয় পাইথন।

পাইথন কী এর সকলতথ্য

বাংলাদেশও পাইথন ব্যবহার শুরু করেছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কতৃপক্ষ এর অটোমেশনের জন্য যে ” ওয়েব বেইজড ডেটাবেজ সফটওয়্যার” তৈরি করেছে তা পাইথন দিয়েই বানানো হয়েছে।

বেশ কয়েক বছর আগে জনপ্রিয় ছিল C language যেটা সারা বিশ্বের মাঝে ব্যবহার হয়েছে এবং এখনো হচ্ছে। এখন Technology আপডেট হওয়ায় Robotics & Artificial Intelligence ( AI ) & Cyber Security এর যুগে পাইথনই সেরা।

See More>>>

ই-সিম কী, সুবিধা ও অসুবিধা