ঢাকা 12:47 pm, Saturday, 4 February 2023

আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?

  • আপডেট সময় : 10:27:45 am, Sunday, 24 April 2022 181 বার পড়া হয়েছে

আসসালামু আলাইকুম!

কেমন আছেন সবাই? আশা করি সবাই ভালো আছেন। আমিও আল্লাহর রহমতে ভালই আছি। আজকে আমি আলোচনা করব আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?
তো বন্ধুরা চলুন শুরু করা যাক :

আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?

আমি অবশ্য আজকের পোস্টে আপনার সাথে খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা কথা শেয়ার করতে চাই প্রথমেই বলব এখন আপনাদের ভালোবাসার জন্য আমরা এই জায়গায় পৌঁছেছে প্রতিটা কোম্পানি আমার কাছে মাসে একটা-না-একটা ফোন পাঠায় সব মিলিয়ে দেখা যায় আমার কাছে মাসে তিন চারটা ফোন করে এসে যায় এছাড়া আপনারা ভালোবাসেন বলে আপনারা চান বলে যে রকম আপনাদের কথা তাই আমাদের সবসময় চ্যানেল চলে তো আমি মাঝেমধ্যে ফোন কিনে রিভিউ করি সব মিলিয়ে আমার কাছে এই সুযোগটা থাকে যে আমি চাইলে প্রতি সপ্তাহে একটা করে নতুন ফোন ব্যবহার করতে পারব কিন্তু আমি কি করি আমি দীর্ঘদিন ধরে রিয়েল মি x2 প্র এই ফোনটা ব্যবহার করছি বের বছর হয়ে গেল এছাড়া স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট টেন প্লাস ফোনটা আমি ইউজ করছি এক বছর হয়ে গেল আমি চাইলেই ফোন বদলাতে পারি অথচ বদলাচ্ছি না ব্যাপারটা ঠিক এরকম নয় ব্যক্তিগত ফোনটা আমি প্রিয় ফল হিসেবে আর বদলায় না সেই ব্যবহার করে আমি আনন্দ পাই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি এবং সেই ফোনটায় তেমন অনেক কিছু থাকে সেগুলো চেঞ্জ করলে আমার প্রচন্ড অসুবিধা।

আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?

তার জন্য আমরা পুরনো ফোন যতদিন পারি ব্যবহার করার চেষ্টা করি এছাড়া অন্য ফোন কেনা মানেই পয়সা নষ্ট হবে এবং সেই পয়সা নষ্ট করার কোনো মানে হয়না তাছাড়া ও এখন ফোনের দাম বাড়তে চলেছে আপনারা সবাই জানেন যে চারদিকে চিপসেট ফোনের দাম আকাশছোঁয়া হয়ে যাবে তাই জন্য অন্তত এক বছর কোন ফোন কেনা উচিত না তাহলে আপনার কাছে যে ফোনটা আছে সেটা আপনি যদি দীর্ঘদিন চালাতে চান কিভাবে চালাবেন আমরা জানি কিভাবে চালানো উচিত তারপরও আমরা এমন কিছু ভুল করি যার জন্য আমাদের ফোনের আলো টা কমে আসে যে ফোনটা তিন বছর চলতাছে ফোনটা দু’বছর চলে যেতে দু বছর চলতে পারতো সেই ফোনের ব্যাটারি দেখা যায় একবছর বাদেই পাল্টাতে হয় কি করা উচিত কি ভুল করি আমরা আজকে একটা ফুল হাত থেকে পড়ে গেলে ভেঙে যাবে আমরা জানি তুই ফোন যাতে পড়ে না যায় আপনাকে খুব সাবধান থাকতে হবে সাবধানে ফোন ব্যবহার করতে হবে ফোন কোরে দেওয়া মানে সেটা শেষ ডিসপ্লে ভেঙে যাবে ইন্টার্নাল ডেমারেজ হতে পারে এবং সেটার ব্যাপার।

আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?

আপনাকে একটু খেয়াল রাখতে হবে সবসময় এটা অ্যাডভাইস দিলাম রাতে ফোনের ব্যাক কভার ইউজ করবেন তাতে ফোন বেঁচে যাওয়ার সম্ভাবনা টা একটু বেড়ে যায় এছাড়াও ফোনের সামনের গ্লাসের উপর একটা প্রোডাক্ট ইউজ করা অবশ্যই উচিত ভালো লাগে না ব্যাপারটা কিন্তু করা অবশ্যই উচিত যদি আপনি মনে করেন যে আপনার ফোনে গরিলা গ্লাস ফাইভ আছে গরিলা গ্লাস ঝাক্কাস আছে তা সত্ত্বেও করা উচিত কারণ সেটা একটা এক্সট্রা লেয়ার অফ প্রটেকশন থাকলে অসুবিধা কি আছে এবং সেটা করবেন অবশ্যই ভিডিও কথা আমাদের ফোনের একটা বড় শত্রু হচ্ছে ধুলো ময়লা তোলার জন্য দীর্ঘদিন আমরা ব্যবহার করতে কত দেখিয়েছে ফোনের চার্জিং পোর্ট আছে তার মধ্যে ধুলো ময়লা জমে যায় তার ফলে চার্চ ঠিকঠাক হয় না ক্যামেরার লেন্স এর উপরের প্রটেক্টর গ্লাস আছে সেটার ব্যাপারে সাবধান থাকতে হবে সেটা থেকে স্ক্রাচ না পড়ে যায় ভিতরে যেতে ধুলো-ময়লা নাটকে সম্ভব হলে কিছুদিন বাদে বাদে সেই ফোনটা কে আপনি একটু পরিষ্কার করে নিন সার্ভিস সেন্টারে গিয়ে সার্ভিসিং করিয়ে নিতে পারেন অথবা নিজের বাড়িতে এটা পরিস্কার করতে পারেন কিন্তু কখনই ডাইরেক্ট এর মধ্যে কোন কেমিক্যাল স্প্রে করবেন না ফোনের মধ্যে ডাইরেক্ট জল দেবেন না যতই থাকুক না কেন কখনই ওয়াটার রেসিস্টেন্ট।

আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?

সেটা একেবারেই জল ঢুকবে না এরকম হতে পারে না সব সময় বিজি থাকে তাই জলের থেকে সাবধান হোন এর পরের পয়েন্টটা এটা নিয়ে পড়বো জলের থেকে যেরকম সাবধান হবেন তেমনি সাবধান হবেন আগুনের থেকে তাপের থেকে এবং ভান্ডার থেকে অবশ্যই এটা একটা ভাইটাল পয়েন্ট ফোনের সব থেকে বড় শত্রু হিট তেমনি উল্টোদিকে খুব ঠান্ডা হলে সেটাও ফোনের সব থেকে বড় শত্রু আপনারা অনেকেই ভাবেন এটা ব্যাটারির জন্য ক্ষতিকর না শুধু বাড়ি নয় মাদারবোর্ড কারণ করে প্রতিটা ইলেকট্রনিক কম্পোনেন্ট এর জন্য ক্ষতিকর তার জন্য ফোন কে সব সময় তার থেকে দূরে রাখুন আমরা যারা গেমপ্লে করি তারা অনেক সময় এটা ভাবি যে ফোন চার্জ হচ্ছে গরম হচ্ছে কি আছে তার মধ্যে একটা গান প্লে করেন বাইরে খুব গরম রোদের মধ্যে আছি তার সাথে করে নিয়ে কি আর হবে কি আর হবে না একটা প্রচন্ড ক্ষতি করে ফোনের লাইভ অনেকটা কমিয়ে দেয় কাউন্টারপয়েন্ট থেকে জানতে পারছি না তাপমাত্রা একটু বেড়ে যায় টেম্পারেচার বেড়ে যায় তাহলে ফোনের পারফরম্যান্স অন্তত থার্টি পার্সেন্ট 2015 খুব কাছাকাছি সেটা হচ্ছে ময়েশ্চারাইজার অর্থাৎ আর্দ্রতা আদ্রতা ফোন বলে নাই যে কোন লোহার জিনিস যে কোন ইলেকট্রনিক্স জিনিস তার খুব বড় শত্রু আমরা জানি।

আমি ফোনের মাদারবোর্ড এমনই একটা জিনিস যেখানে যদি কোনরকম ম্যাসেজ আসে শেষ হয়ে গেল ওখানে ধরে নিতে পারেন ওটা আর আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনা সত্যিই প্রায় অসম্ভব সে কাছে যে কোনো ইলেকট্রনিক জিনিস কে সবসময় চেষ্টা করবেন ময়েশ্চার থেকে দূরে রাখার আপনি যে পরিবেশে আপনার ফোনটা কে রাখছেন নিয়মিত ব্যবহার করছেন সেই পরিবেশটাই ব্যাপারে একটু খেয়াল রাখুন সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হচ্ছে তার ব্যাটারি কারণ সেটাই সব থেকে তাড়াতাড়ি খরচ হয়ে যায় খারাপ হয়ে যায় ফোন ব্যবহার না করলেও খরচা হয়ে যায় সেটার ব্যাপারে কিছু ইম্পরট্যান্ট পয়েন্টগুলো যেটা সম্পর্কে আমার নিজেরও কিছু ভুল ধারনা ছিল সেগুলো আপনাকে আজকে বলবো তবে তার আগে বলেনি আর কয়েকটা গুরুত্বপূর্ণ জিনিস যেমন ফোনের সফটওয়্যার আপডেট সফটওয়্যার আপডেট বিশেষ করে সিকিউরিটি আপডেট নিয়মিত করা উচিত আমাদের ফোনের কোম্পানির ঠিকঠাক আপডেট দেবে সেটা না দিলে কিভাবে সেটা নিয়ে আলোচনা করে লাভ নেই কারণ সেটা আমাদের হাতে নেই নিয়মিত আপডেট দেওয়া উচিত যাতে পুনরায় আবার পেছনের হেলথ ভালো থাকবেন মেমোরিতে বেশি জোর দেয়া উচিত না মেমরি যথাসম্ভব খালি রাখুন ফোনের রেম যেটা সেইটা আমরা মাঝেমধ্যে ক্লিয়ার করি ক্যাশ মেমোরি ক্লিয়ার করছি এরকম ভেবে।

আমাদের ফোনটা ফুল নয় সেটা একটা স্মার্টফোন তাই তাকে স্মার্টলি কাজ করতে দিন ফোনের যে মেমোরি টা তার পেমে রাখা দরকার সেটা সেরে আমি এমনি রেখে দেয় যে ডাকিল করা দরকার সেটা নিজেই করে আপনাকে ফোন কে হেল্প করার জন্য এখানে ফোন রাখেনি আপনার দরকার নেই ফোনকে হেল্প করার জন্য এবং এটা যদি করেন উল্টা যেটা হয় ফোনের ব্যাটারির ওপরে প্রচারের ওপর চাপ পড়ে ফোনকে বারবার প্রসেস করতে হয় সেই অ্যাপ্লিকেশন টাইম এর বদলে আবার ভেতর থেকে রং থেকে তুলে নিয়ে আসার জন্য এটা না হতে দেওয়া এবার তাহলে গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে প্রসঙ্গে চলে আসবো ব্যাটারি প্রসঙ্গে যেটা আপনারা জানেন যে সব সময় বলি যে ফোনের অরিজিনাল চার্জার ইউজ করুন কিন্তু এখানেই শেষ নয় কথাটা অরিজিনাল চার্জার ইউজ করছেন আর একটা লোকাল সস্তা আর ডাটা কেবিল ইউজ করছেন তাহলে কোন লাভ নেই ফোন কোম্পানিগুলো এখন এমন ভাবে সব কিছু বানায় যে তাদের ফোনের ভেতরে যে সার্কিট আছে চার্জিং সার্কিট তার সাথে যে ডেটা কেবেল আছে সেটা কেবল প্লাস চার্জার চার্জার এর ভেতরে যে ছারকে সবকিছু মিলে একটা সার্কিট কমপ্লিট হয় সবকিছু মিলে পুরো ব্যাবস্থাপনা টাকার রেট।

কোন কিছু মিসিং থাকে কোন একটা কিছু লোকাল হয় তাহলে কিন্তু আর পুরোপুরি আপনি পারফরম্যান্স পাবেন না এবং ব্যাটারির স্বাস্থ্য খারাপ হয়ে যাবে ফোনের যেখান থেকে চার্জ হয় চার্জিং পোর্ট সেখানে কোন সেন্সর থাকে না সেখানে একটা সার্কিট থাকে আমাদের সবার মধ্যে বেশ কিছু ভুল ধারণা রয়েছে যেমন আমার নিজের মধ্যেও ছিল আমি আপনাদের প্রাইস আগস্ট পড়তাম এরকম জেগে ফোন ঘাঁটা চার্জ দিলে কোন ক্ষতি নেই আসলে থিওরিটিক্যাল কোন ক্ষতি নেই কিন্তু প্র্যাকটিক্যালি যেটা হয় তখন আপনি সারারাত চার্জে রেখে দিয়েছেন একটা সময়ে ফোন ফুল হান্ডেট পার্সেন্ট চার্জ হয়ে গেল সারফেকট্যান্ট হয়ে গেলো অর্থাত্ আর ফোন চার্জ নিচ্ছে না কিন্তু ইতিমধ্যে ফোনের বিভিন্ন প্রচার বা কোম্পানির তো জেগে আছে তারা তো কিছুটা হলেও ব্যাটারি কন্সিম করছে ব্যাটারি টা একটু কমে 99 পার্সেন্ট হয়ে গেল সাথে সাথে আবার চার্জ হয় শুরু হয়ে গেল এই ব্যাপারটাই রাত্রে বারবার হতে থাকে যার ফলে সেটা কিন্তু ব্যাটারি স্বাস্থ্যের পক্ষে খুব একটা ভালো হয় না এই রাত্রে সারারাত চার্জে বসিয়ে রাখা মানে ফোন ঠিকঠাক cut-off হচ্ছে সার্কিট ব্রেকার কিন্তু ফুল সারারাত বিভিন্ন সাইকেলে চার্জ হতে থাকে এটার জন্য অবশ্যই আমি বলব যে সারারাত চার্জে না বসিয়ে রাখার ব্যাপারটা।

এটা চেষ্টা করা উচিত তবুও বসিয়ে রাখলে খুব ক্ষতি হবে এরকম নয় কখনো প্রয়োজন পড়লে অবশ্যই বসিয়ে রাখুন ব্যাটারি সম্পর্কে আর একটা রিকোয়েস্ট করব এবার ব্যাটারি সম্পর্কে আপনার প্রায়ই শুনে নিজে ব্যাটারি পারসেন্ট চার্জ যদি চলে আসে তখন চার্জে বসানো উচিত কেউ বলে ব্যাটারি পারসেন্ট চার্জ আছে চলে আসলে তখন চার্জে বসানো উচিত জিরো পার্সেন্ট হলে তারপরে 43 তবে ভালো চার্জ হবে আমি বলব এর কোন কথাটা শুনবেনা ব্যাটারি আপনার যখন ভর্তি যেরকম ইচ্ছা সে রকম 4 ছিল একটু আগে বললাম না আপনার ফোনটা ফোন নয় ওটা স্মার্টফোন সে জানে কখন থেকে কিভাবে চার্জ করা উচিত তার জন্য ব্যাটারি এভাবেই বানানো হচ্ছে যে আপনি 0% পর 40 কিছু ক্ষতি হবে না এটা হত * আমলের ব্যাটারির ক্ষেত্রে হতো কিন্তু এখন আমরা লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি ব্যবহার করি সেই লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যে পূরণ হয়ে গেল তারপরও চার্জ দিলে কোন সমস্যা হবে না অনেকে বলে যে ব্যাটারি সাইকেল যেটা আছে সেটাই কল টা ব্রেক হবে সাইকেলটাকে আপনি ফাঁকি দিতে পারবেন যদি 20 শতাংশ এ 80 পার্সেন্ট অব্দি চারটে আমি শুধু আপনার কাছে একটা প্রশ্ন করতে চাই যে আমাদের ফোনটা.

হবে এটাকে যদি এত সহজেই বোকা বানানো যায় যে 80 পার্সেন্ট চার্জ দিলে সে বুঝতে পারলো না তার জন্য সে সাইকেলটা কাউন্ট হলো না তাহলে ফোনের ব্যাটারি তো আজীবন চালিয়ে দেওয়া যাবে আমাকে বোকা বানাবো ব্যাটারি সাইকেল সাইকেল কাউন্সিল রয়ে যাবে চিরকাল আর কোনদিন আমাদের ব্যাটারি খারাপ হবে না এটা হতে পারে তো এটাই হওয়া উচিত কিন্তু সেটা তো হয় না সে ক্ষেত্রে কুড়ি পার্সেন্ট শতাংশ শোধিত একটুও ভরসা করবেন না ইচ্ছামতো ব্যাটারি চালিত স্মার্টফোনের মধ্যে সব গভীর বিষয় গুলো যেগুলো আমরা কিছুটা জানি কিছুটা জানতাম না এগুলো নিয়ে আলোচনা হয় কিন্তু এর বাইরে কিছু জিনিস গুলো আলোচনা হয় না যেগুলো শেষ হয়েও শেষ হয় না এসব ব্যাপার নিয়ে আজকে আরো কিছু বলতে চাই আপনাদের প্রথম কথা যেটা বলব সেটা হচ্ছে একটা স্মার্টফোন বেশিদিন চালাতে গেলে কি করা উচিত এখন হচ্ছে সেটা কম ব্যবহার করা উচিত এটাই তো হওয়ার কথা যত কম ব্যবহার করবেন তত বেশি দিন চলবে তাহলে আর ফোন কিনে লাভ কি না আপনি বেশি ব্যবহার করুন কিন্তু ব্যবহার করার ক্ষেত্রে একটা ব্যাপার একটু সাবধান থাকুন প্রয়োজনে ফোনের ওপর স্ট্রেস দেবেন না ফোনটা উপর বেশি কষ্ট দেবেনা ভার চাপিয়ে দেবেন না মনে করুন আপনি বিয়ে করছেন।

এমন কিছু তেম্প্লে করছেন যেটা হাই সেটিং এখন করার প্রয়োজন নেই যেখানে 100 কোটি হাঁটছি ফ্রাস্ট্রেটেড আপনার দরকার নেই গেমটা সাপোর্ট করেনা 1000000007 রিফ্রেশ রেট সেগুলো অন করে রাখবেন আপনি সিক্সথ সেন্সে করুন ডিসপ্লেতে সিক্সটি ইয়ার্স অ্যানিভার্সারি ডেট ফিক্স করে রাখুন আপনি আল্ট্রা সেটিং সেটিং এসব না দিয়ে একটা ব্যালেন্স সেটিং এর গান প্লে করুন দেখবেন খুব একটা তফাৎ নেই গ্রাফিক্সের খুব বেশি পার্থক্য হবে না এবং গেমস আরশ নুত্রিচরগে ভালো এক্সপেরিয়েন্স পাবেন এবং আপনার ফোনটা অফ সেও বেশ আনন্দে থাকবে একটু স্বস্তি পায় স্মার্টফোন তখন আমরা হাতে করে নিয়ে ঘুরি তখন তো একরকম কিন্তু যখন পকেট এ করে নিয়ে ঘুরি তখন বেশ কনফিউশন তৈরি হয় ফোনটা কিভাবে পকেটে ঢোকাবো অনেকে ফোনের ডিসপ্লে বাইরের দিকে রাখেন এবং ব্যাক সাইডের সেটা আমাদের গায়ের সাথে টাচ হয়ে থাকে আবার অনেকে উল্টোটা করে আমার সাথে সব সময় থাকবে ফোনের ব্যাক সাইট টা বাইরের দিকে থাকুক আর ডিসপ্লের দিকে একটা আপনার গায়ের সাথে টাচ হয়ে থাকুক সেটা পকেটের মধ্যে এমনভাবে প্রেস করুন যার ফলে বাইচান্স আপনার পক্ষে যদি কোনও ধাক্কা লাগে বাইরে থেকে এসেই ধাক্কাটা আপনার ফোনের ব্যাক সাইডে পড়বে।

প্লেয়ার প্রো সরাসরি পড়বে না তার ফলে ডিসপ্লেটা বেঁচে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে ব্যবসায়ী ভেঙে যেতে পারে কিন্তু সেটা ভালো সম্ভাবনার তুলনামূলক কম এবং সেটা রিপ্লেস করার খরচ সেটাও তুলনামূলক কম তার জন্য ফোন ব্যাক সাইট টা সবসময় বাইরের দিকে রাখুন এবং অবশ্যই চেষ্টা করবেন ফোন পকেটে যাতে যতটা সম্ভব কম রাখা যায় আমাদের বডি টেম্পারেচার আছে সেখান থেকেও কিছুটা গরম হয়ে যায় সেখানে আপনার প্রতি 15 খতিয়ানের ব্যাপারে বিস্তারিত রেডিয়েশনের ভিডিওটি হেডফোনটা খারাপ হয়ে যায় এমনিতেই ব্যবহার করলে খারাপ তো হবেই কিন্তু তার সাথে যদি আপনি খারাপ কোয়ালিটির লো কোয়ালিটির লোকাল কিছু হেডফোন ইউজ করেন তাহলে খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায় এবং এই পোস্টটাকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য পিতৃতুল্য ইউজ করে দেখতে পারেন সেটা একটা ভালো জিনিস হতে পারে কিন্তু সেটার আবার খারাপ দিক আছে সেটা খারাপ দেখায় যে আপনি ব্লুটুথ যত বেশি অন করে রাখবেন তত দ্রুত আপনার ব্যাটারি স্বাস্থ্য খারাপ হয়ে যাবে ব্যাটারি বার্স্ট হয়ে যাবে বার বার চার্জ দিতে হবে তাহলে।

আয়ু কমে যাচ্ছে দুটোরই পজেটিভ নেগেটিভ দিক আছে এবং তবুও যেটা ইউজ করবেন সেটাই ভালো কোয়ালিটির ইউজ করবেন এটাই আপনাকে অনুরোধ আমার মনে হয় এগুলো খেয়াল রাখা উচিত একটা সময় আর এর বাইরে আপনার যদি কোন সাজেশন থাকে সেটা অবশ্যই কমেন্টে লিখে জানান আপনার থেকে আমি সবসময় শিখতে চাই অবশ্যই কমেন্টে লিখে জানাবেন আজকের মত বিদায়।

সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন আর আমাদের সাইটের সাথে থাকবেন নতুন নতুন পোস্ট পেতে এবং আপনাদের বন্ধুদের শেয়ার করে দিবেন পোস্টটি ভালো লাগলে । আমার আর অন্যান্য পোস্ট:

ফেসবুক থেকে ইনকাম করার সঠিক উপায়

যে কোন প্রয়োজনে আমার সাথে যোগাযোগ করুন :

facebook contact me

ধন্যবাদ সবাইকে

আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?

আপডেট সময় : 10:27:45 am, Sunday, 24 April 2022

আসসালামু আলাইকুম!

কেমন আছেন সবাই? আশা করি সবাই ভালো আছেন। আমিও আল্লাহর রহমতে ভালই আছি। আজকে আমি আলোচনা করব আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?
তো বন্ধুরা চলুন শুরু করা যাক :

আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?

আমি অবশ্য আজকের পোস্টে আপনার সাথে খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা কথা শেয়ার করতে চাই প্রথমেই বলব এখন আপনাদের ভালোবাসার জন্য আমরা এই জায়গায় পৌঁছেছে প্রতিটা কোম্পানি আমার কাছে মাসে একটা-না-একটা ফোন পাঠায় সব মিলিয়ে দেখা যায় আমার কাছে মাসে তিন চারটা ফোন করে এসে যায় এছাড়া আপনারা ভালোবাসেন বলে আপনারা চান বলে যে রকম আপনাদের কথা তাই আমাদের সবসময় চ্যানেল চলে তো আমি মাঝেমধ্যে ফোন কিনে রিভিউ করি সব মিলিয়ে আমার কাছে এই সুযোগটা থাকে যে আমি চাইলে প্রতি সপ্তাহে একটা করে নতুন ফোন ব্যবহার করতে পারব কিন্তু আমি কি করি আমি দীর্ঘদিন ধরে রিয়েল মি x2 প্র এই ফোনটা ব্যবহার করছি বের বছর হয়ে গেল এছাড়া স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট টেন প্লাস ফোনটা আমি ইউজ করছি এক বছর হয়ে গেল আমি চাইলেই ফোন বদলাতে পারি অথচ বদলাচ্ছি না ব্যাপারটা ঠিক এরকম নয় ব্যক্তিগত ফোনটা আমি প্রিয় ফল হিসেবে আর বদলায় না সেই ব্যবহার করে আমি আনন্দ পাই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি এবং সেই ফোনটায় তেমন অনেক কিছু থাকে সেগুলো চেঞ্জ করলে আমার প্রচন্ড অসুবিধা।

আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?

তার জন্য আমরা পুরনো ফোন যতদিন পারি ব্যবহার করার চেষ্টা করি এছাড়া অন্য ফোন কেনা মানেই পয়সা নষ্ট হবে এবং সেই পয়সা নষ্ট করার কোনো মানে হয়না তাছাড়া ও এখন ফোনের দাম বাড়তে চলেছে আপনারা সবাই জানেন যে চারদিকে চিপসেট ফোনের দাম আকাশছোঁয়া হয়ে যাবে তাই জন্য অন্তত এক বছর কোন ফোন কেনা উচিত না তাহলে আপনার কাছে যে ফোনটা আছে সেটা আপনি যদি দীর্ঘদিন চালাতে চান কিভাবে চালাবেন আমরা জানি কিভাবে চালানো উচিত তারপরও আমরা এমন কিছু ভুল করি যার জন্য আমাদের ফোনের আলো টা কমে আসে যে ফোনটা তিন বছর চলতাছে ফোনটা দু’বছর চলে যেতে দু বছর চলতে পারতো সেই ফোনের ব্যাটারি দেখা যায় একবছর বাদেই পাল্টাতে হয় কি করা উচিত কি ভুল করি আমরা আজকে একটা ফুল হাত থেকে পড়ে গেলে ভেঙে যাবে আমরা জানি তুই ফোন যাতে পড়ে না যায় আপনাকে খুব সাবধান থাকতে হবে সাবধানে ফোন ব্যবহার করতে হবে ফোন কোরে দেওয়া মানে সেটা শেষ ডিসপ্লে ভেঙে যাবে ইন্টার্নাল ডেমারেজ হতে পারে এবং সেটার ব্যাপার।

আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?

আপনাকে একটু খেয়াল রাখতে হবে সবসময় এটা অ্যাডভাইস দিলাম রাতে ফোনের ব্যাক কভার ইউজ করবেন তাতে ফোন বেঁচে যাওয়ার সম্ভাবনা টা একটু বেড়ে যায় এছাড়াও ফোনের সামনের গ্লাসের উপর একটা প্রোডাক্ট ইউজ করা অবশ্যই উচিত ভালো লাগে না ব্যাপারটা কিন্তু করা অবশ্যই উচিত যদি আপনি মনে করেন যে আপনার ফোনে গরিলা গ্লাস ফাইভ আছে গরিলা গ্লাস ঝাক্কাস আছে তা সত্ত্বেও করা উচিত কারণ সেটা একটা এক্সট্রা লেয়ার অফ প্রটেকশন থাকলে অসুবিধা কি আছে এবং সেটা করবেন অবশ্যই ভিডিও কথা আমাদের ফোনের একটা বড় শত্রু হচ্ছে ধুলো ময়লা তোলার জন্য দীর্ঘদিন আমরা ব্যবহার করতে কত দেখিয়েছে ফোনের চার্জিং পোর্ট আছে তার মধ্যে ধুলো ময়লা জমে যায় তার ফলে চার্চ ঠিকঠাক হয় না ক্যামেরার লেন্স এর উপরের প্রটেক্টর গ্লাস আছে সেটার ব্যাপারে সাবধান থাকতে হবে সেটা থেকে স্ক্রাচ না পড়ে যায় ভিতরে যেতে ধুলো-ময়লা নাটকে সম্ভব হলে কিছুদিন বাদে বাদে সেই ফোনটা কে আপনি একটু পরিষ্কার করে নিন সার্ভিস সেন্টারে গিয়ে সার্ভিসিং করিয়ে নিতে পারেন অথবা নিজের বাড়িতে এটা পরিস্কার করতে পারেন কিন্তু কখনই ডাইরেক্ট এর মধ্যে কোন কেমিক্যাল স্প্রে করবেন না ফোনের মধ্যে ডাইরেক্ট জল দেবেন না যতই থাকুক না কেন কখনই ওয়াটার রেসিস্টেন্ট।

আপনার ফোনকে ভালো রাখার জন্য কি করা উচিত ?

সেটা একেবারেই জল ঢুকবে না এরকম হতে পারে না সব সময় বিজি থাকে তাই জলের থেকে সাবধান হোন এর পরের পয়েন্টটা এটা নিয়ে পড়বো জলের থেকে যেরকম সাবধান হবেন তেমনি সাবধান হবেন আগুনের থেকে তাপের থেকে এবং ভান্ডার থেকে অবশ্যই এটা একটা ভাইটাল পয়েন্ট ফোনের সব থেকে বড় শত্রু হিট তেমনি উল্টোদিকে খুব ঠান্ডা হলে সেটাও ফোনের সব থেকে বড় শত্রু আপনারা অনেকেই ভাবেন এটা ব্যাটারির জন্য ক্ষতিকর না শুধু বাড়ি নয় মাদারবোর্ড কারণ করে প্রতিটা ইলেকট্রনিক কম্পোনেন্ট এর জন্য ক্ষতিকর তার জন্য ফোন কে সব সময় তার থেকে দূরে রাখুন আমরা যারা গেমপ্লে করি তারা অনেক সময় এটা ভাবি যে ফোন চার্জ হচ্ছে গরম হচ্ছে কি আছে তার মধ্যে একটা গান প্লে করেন বাইরে খুব গরম রোদের মধ্যে আছি তার সাথে করে নিয়ে কি আর হবে কি আর হবে না একটা প্রচন্ড ক্ষতি করে ফোনের লাইভ অনেকটা কমিয়ে দেয় কাউন্টারপয়েন্ট থেকে জানতে পারছি না তাপমাত্রা একটু বেড়ে যায় টেম্পারেচার বেড়ে যায় তাহলে ফোনের পারফরম্যান্স অন্তত থার্টি পার্সেন্ট 2015 খুব কাছাকাছি সেটা হচ্ছে ময়েশ্চারাইজার অর্থাৎ আর্দ্রতা আদ্রতা ফোন বলে নাই যে কোন লোহার জিনিস যে কোন ইলেকট্রনিক্স জিনিস তার খুব বড় শত্রু আমরা জানি।

আমি ফোনের মাদারবোর্ড এমনই একটা জিনিস যেখানে যদি কোনরকম ম্যাসেজ আসে শেষ হয়ে গেল ওখানে ধরে নিতে পারেন ওটা আর আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনা সত্যিই প্রায় অসম্ভব সে কাছে যে কোনো ইলেকট্রনিক জিনিস কে সবসময় চেষ্টা করবেন ময়েশ্চার থেকে দূরে রাখার আপনি যে পরিবেশে আপনার ফোনটা কে রাখছেন নিয়মিত ব্যবহার করছেন সেই পরিবেশটাই ব্যাপারে একটু খেয়াল রাখুন সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হচ্ছে তার ব্যাটারি কারণ সেটাই সব থেকে তাড়াতাড়ি খরচ হয়ে যায় খারাপ হয়ে যায় ফোন ব্যবহার না করলেও খরচা হয়ে যায় সেটার ব্যাপারে কিছু ইম্পরট্যান্ট পয়েন্টগুলো যেটা সম্পর্কে আমার নিজেরও কিছু ভুল ধারনা ছিল সেগুলো আপনাকে আজকে বলবো তবে তার আগে বলেনি আর কয়েকটা গুরুত্বপূর্ণ জিনিস যেমন ফোনের সফটওয়্যার আপডেট সফটওয়্যার আপডেট বিশেষ করে সিকিউরিটি আপডেট নিয়মিত করা উচিত আমাদের ফোনের কোম্পানির ঠিকঠাক আপডেট দেবে সেটা না দিলে কিভাবে সেটা নিয়ে আলোচনা করে লাভ নেই কারণ সেটা আমাদের হাতে নেই নিয়মিত আপডেট দেওয়া উচিত যাতে পুনরায় আবার পেছনের হেলথ ভালো থাকবেন মেমোরিতে বেশি জোর দেয়া উচিত না মেমরি যথাসম্ভব খালি রাখুন ফোনের রেম যেটা সেইটা আমরা মাঝেমধ্যে ক্লিয়ার করি ক্যাশ মেমোরি ক্লিয়ার করছি এরকম ভেবে।

আমাদের ফোনটা ফুল নয় সেটা একটা স্মার্টফোন তাই তাকে স্মার্টলি কাজ করতে দিন ফোনের যে মেমোরি টা তার পেমে রাখা দরকার সেটা সেরে আমি এমনি রেখে দেয় যে ডাকিল করা দরকার সেটা নিজেই করে আপনাকে ফোন কে হেল্প করার জন্য এখানে ফোন রাখেনি আপনার দরকার নেই ফোনকে হেল্প করার জন্য এবং এটা যদি করেন উল্টা যেটা হয় ফোনের ব্যাটারির ওপরে প্রচারের ওপর চাপ পড়ে ফোনকে বারবার প্রসেস করতে হয় সেই অ্যাপ্লিকেশন টাইম এর বদলে আবার ভেতর থেকে রং থেকে তুলে নিয়ে আসার জন্য এটা না হতে দেওয়া এবার তাহলে গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে প্রসঙ্গে চলে আসবো ব্যাটারি প্রসঙ্গে যেটা আপনারা জানেন যে সব সময় বলি যে ফোনের অরিজিনাল চার্জার ইউজ করুন কিন্তু এখানেই শেষ নয় কথাটা অরিজিনাল চার্জার ইউজ করছেন আর একটা লোকাল সস্তা আর ডাটা কেবিল ইউজ করছেন তাহলে কোন লাভ নেই ফোন কোম্পানিগুলো এখন এমন ভাবে সব কিছু বানায় যে তাদের ফোনের ভেতরে যে সার্কিট আছে চার্জিং সার্কিট তার সাথে যে ডেটা কেবেল আছে সেটা কেবল প্লাস চার্জার চার্জার এর ভেতরে যে ছারকে সবকিছু মিলে একটা সার্কিট কমপ্লিট হয় সবকিছু মিলে পুরো ব্যাবস্থাপনা টাকার রেট।

কোন কিছু মিসিং থাকে কোন একটা কিছু লোকাল হয় তাহলে কিন্তু আর পুরোপুরি আপনি পারফরম্যান্স পাবেন না এবং ব্যাটারির স্বাস্থ্য খারাপ হয়ে যাবে ফোনের যেখান থেকে চার্জ হয় চার্জিং পোর্ট সেখানে কোন সেন্সর থাকে না সেখানে একটা সার্কিট থাকে আমাদের সবার মধ্যে বেশ কিছু ভুল ধারণা রয়েছে যেমন আমার নিজের মধ্যেও ছিল আমি আপনাদের প্রাইস আগস্ট পড়তাম এরকম জেগে ফোন ঘাঁটা চার্জ দিলে কোন ক্ষতি নেই আসলে থিওরিটিক্যাল কোন ক্ষতি নেই কিন্তু প্র্যাকটিক্যালি যেটা হয় তখন আপনি সারারাত চার্জে রেখে দিয়েছেন একটা সময়ে ফোন ফুল হান্ডেট পার্সেন্ট চার্জ হয়ে গেল সারফেকট্যান্ট হয়ে গেলো অর্থাত্ আর ফোন চার্জ নিচ্ছে না কিন্তু ইতিমধ্যে ফোনের বিভিন্ন প্রচার বা কোম্পানির তো জেগে আছে তারা তো কিছুটা হলেও ব্যাটারি কন্সিম করছে ব্যাটারি টা একটু কমে 99 পার্সেন্ট হয়ে গেল সাথে সাথে আবার চার্জ হয় শুরু হয়ে গেল এই ব্যাপারটাই রাত্রে বারবার হতে থাকে যার ফলে সেটা কিন্তু ব্যাটারি স্বাস্থ্যের পক্ষে খুব একটা ভালো হয় না এই রাত্রে সারারাত চার্জে বসিয়ে রাখা মানে ফোন ঠিকঠাক cut-off হচ্ছে সার্কিট ব্রেকার কিন্তু ফুল সারারাত বিভিন্ন সাইকেলে চার্জ হতে থাকে এটার জন্য অবশ্যই আমি বলব যে সারারাত চার্জে না বসিয়ে রাখার ব্যাপারটা।

এটা চেষ্টা করা উচিত তবুও বসিয়ে রাখলে খুব ক্ষতি হবে এরকম নয় কখনো প্রয়োজন পড়লে অবশ্যই বসিয়ে রাখুন ব্যাটারি সম্পর্কে আর একটা রিকোয়েস্ট করব এবার ব্যাটারি সম্পর্কে আপনার প্রায়ই শুনে নিজে ব্যাটারি পারসেন্ট চার্জ যদি চলে আসে তখন চার্জে বসানো উচিত কেউ বলে ব্যাটারি পারসেন্ট চার্জ আছে চলে আসলে তখন চার্জে বসানো উচিত জিরো পার্সেন্ট হলে তারপরে 43 তবে ভালো চার্জ হবে আমি বলব এর কোন কথাটা শুনবেনা ব্যাটারি আপনার যখন ভর্তি যেরকম ইচ্ছা সে রকম 4 ছিল একটু আগে বললাম না আপনার ফোনটা ফোন নয় ওটা স্মার্টফোন সে জানে কখন থেকে কিভাবে চার্জ করা উচিত তার জন্য ব্যাটারি এভাবেই বানানো হচ্ছে যে আপনি 0% পর 40 কিছু ক্ষতি হবে না এটা হত * আমলের ব্যাটারির ক্ষেত্রে হতো কিন্তু এখন আমরা লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি ব্যবহার করি সেই লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যে পূরণ হয়ে গেল তারপরও চার্জ দিলে কোন সমস্যা হবে না অনেকে বলে যে ব্যাটারি সাইকেল যেটা আছে সেটাই কল টা ব্রেক হবে সাইকেলটাকে আপনি ফাঁকি দিতে পারবেন যদি 20 শতাংশ এ 80 পার্সেন্ট অব্দি চারটে আমি শুধু আপনার কাছে একটা প্রশ্ন করতে চাই যে আমাদের ফোনটা.

হবে এটাকে যদি এত সহজেই বোকা বানানো যায় যে 80 পার্সেন্ট চার্জ দিলে সে বুঝতে পারলো না তার জন্য সে সাইকেলটা কাউন্ট হলো না তাহলে ফোনের ব্যাটারি তো আজীবন চালিয়ে দেওয়া যাবে আমাকে বোকা বানাবো ব্যাটারি সাইকেল সাইকেল কাউন্সিল রয়ে যাবে চিরকাল আর কোনদিন আমাদের ব্যাটারি খারাপ হবে না এটা হতে পারে তো এটাই হওয়া উচিত কিন্তু সেটা তো হয় না সে ক্ষেত্রে কুড়ি পার্সেন্ট শতাংশ শোধিত একটুও ভরসা করবেন না ইচ্ছামতো ব্যাটারি চালিত স্মার্টফোনের মধ্যে সব গভীর বিষয় গুলো যেগুলো আমরা কিছুটা জানি কিছুটা জানতাম না এগুলো নিয়ে আলোচনা হয় কিন্তু এর বাইরে কিছু জিনিস গুলো আলোচনা হয় না যেগুলো শেষ হয়েও শেষ হয় না এসব ব্যাপার নিয়ে আজকে আরো কিছু বলতে চাই আপনাদের প্রথম কথা যেটা বলব সেটা হচ্ছে একটা স্মার্টফোন বেশিদিন চালাতে গেলে কি করা উচিত এখন হচ্ছে সেটা কম ব্যবহার করা উচিত এটাই তো হওয়ার কথা যত কম ব্যবহার করবেন তত বেশি দিন চলবে তাহলে আর ফোন কিনে লাভ কি না আপনি বেশি ব্যবহার করুন কিন্তু ব্যবহার করার ক্ষেত্রে একটা ব্যাপার একটু সাবধান থাকুন প্রয়োজনে ফোনের ওপর স্ট্রেস দেবেন না ফোনটা উপর বেশি কষ্ট দেবেনা ভার চাপিয়ে দেবেন না মনে করুন আপনি বিয়ে করছেন।

এমন কিছু তেম্প্লে করছেন যেটা হাই সেটিং এখন করার প্রয়োজন নেই যেখানে 100 কোটি হাঁটছি ফ্রাস্ট্রেটেড আপনার দরকার নেই গেমটা সাপোর্ট করেনা 1000000007 রিফ্রেশ রেট সেগুলো অন করে রাখবেন আপনি সিক্সথ সেন্সে করুন ডিসপ্লেতে সিক্সটি ইয়ার্স অ্যানিভার্সারি ডেট ফিক্স করে রাখুন আপনি আল্ট্রা সেটিং সেটিং এসব না দিয়ে একটা ব্যালেন্স সেটিং এর গান প্লে করুন দেখবেন খুব একটা তফাৎ নেই গ্রাফিক্সের খুব বেশি পার্থক্য হবে না এবং গেমস আরশ নুত্রিচরগে ভালো এক্সপেরিয়েন্স পাবেন এবং আপনার ফোনটা অফ সেও বেশ আনন্দে থাকবে একটু স্বস্তি পায় স্মার্টফোন তখন আমরা হাতে করে নিয়ে ঘুরি তখন তো একরকম কিন্তু যখন পকেট এ করে নিয়ে ঘুরি তখন বেশ কনফিউশন তৈরি হয় ফোনটা কিভাবে পকেটে ঢোকাবো অনেকে ফোনের ডিসপ্লে বাইরের দিকে রাখেন এবং ব্যাক সাইডের সেটা আমাদের গায়ের সাথে টাচ হয়ে থাকে আবার অনেকে উল্টোটা করে আমার সাথে সব সময় থাকবে ফোনের ব্যাক সাইট টা বাইরের দিকে থাকুক আর ডিসপ্লের দিকে একটা আপনার গায়ের সাথে টাচ হয়ে থাকুক সেটা পকেটের মধ্যে এমনভাবে প্রেস করুন যার ফলে বাইচান্স আপনার পক্ষে যদি কোনও ধাক্কা লাগে বাইরে থেকে এসেই ধাক্কাটা আপনার ফোনের ব্যাক সাইডে পড়বে।

প্লেয়ার প্রো সরাসরি পড়বে না তার ফলে ডিসপ্লেটা বেঁচে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে ব্যবসায়ী ভেঙে যেতে পারে কিন্তু সেটা ভালো সম্ভাবনার তুলনামূলক কম এবং সেটা রিপ্লেস করার খরচ সেটাও তুলনামূলক কম তার জন্য ফোন ব্যাক সাইট টা সবসময় বাইরের দিকে রাখুন এবং অবশ্যই চেষ্টা করবেন ফোন পকেটে যাতে যতটা সম্ভব কম রাখা যায় আমাদের বডি টেম্পারেচার আছে সেখান থেকেও কিছুটা গরম হয়ে যায় সেখানে আপনার প্রতি 15 খতিয়ানের ব্যাপারে বিস্তারিত রেডিয়েশনের ভিডিওটি হেডফোনটা খারাপ হয়ে যায় এমনিতেই ব্যবহার করলে খারাপ তো হবেই কিন্তু তার সাথে যদি আপনি খারাপ কোয়ালিটির লো কোয়ালিটির লোকাল কিছু হেডফোন ইউজ করেন তাহলে খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায় এবং এই পোস্টটাকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য পিতৃতুল্য ইউজ করে দেখতে পারেন সেটা একটা ভালো জিনিস হতে পারে কিন্তু সেটার আবার খারাপ দিক আছে সেটা খারাপ দেখায় যে আপনি ব্লুটুথ যত বেশি অন করে রাখবেন তত দ্রুত আপনার ব্যাটারি স্বাস্থ্য খারাপ হয়ে যাবে ব্যাটারি বার্স্ট হয়ে যাবে বার বার চার্জ দিতে হবে তাহলে।

আয়ু কমে যাচ্ছে দুটোরই পজেটিভ নেগেটিভ দিক আছে এবং তবুও যেটা ইউজ করবেন সেটাই ভালো কোয়ালিটির ইউজ করবেন এটাই আপনাকে অনুরোধ আমার মনে হয় এগুলো খেয়াল রাখা উচিত একটা সময় আর এর বাইরে আপনার যদি কোন সাজেশন থাকে সেটা অবশ্যই কমেন্টে লিখে জানান আপনার থেকে আমি সবসময় শিখতে চাই অবশ্যই কমেন্টে লিখে জানাবেন আজকের মত বিদায়।

সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন আর আমাদের সাইটের সাথে থাকবেন নতুন নতুন পোস্ট পেতে এবং আপনাদের বন্ধুদের শেয়ার করে দিবেন পোস্টটি ভালো লাগলে । আমার আর অন্যান্য পোস্ট:

ফেসবুক থেকে ইনকাম করার সঠিক উপায়

যে কোন প্রয়োজনে আমার সাথে যোগাযোগ করুন :

facebook contact me

ধন্যবাদ সবাইকে