ঢাকা 12:26 pm, Saturday, 4 February 2023

পা ফাটার সকল সমস্যা ও সমাধান।

  • আপডেট সময় : 01:11:57 pm, Saturday, 27 August 2022 44 বার পড়া হয়েছে

পা ফাটার সকল সমস্যা ও সমাধান;

শীতকালে পা ফাটা নতুন কোন সমস্যা নয়। শরীর শুষ্ক যত তাড়াতাড়ি হয় শীতকালে পা যত দ্রুত ফাতে। তাই শীতকাল আসার পূর্বেই শরীরের যত্ন নেওয়া বিশেষভাবে দরকার।

শীতে হাত ও পায়ের টক রুক্ষ হয়ে পরে ময়েশ্চারের অভাবে। সুন্দর কাপড় বা সাজ, দারুন সুন্দর হেয়ার স্টাইল আর বিশেষ অ্যাটিটিউড  ফাটা গোড়ালি দেখা গেলে সব ই শেষ হয়ে যায়।

তাই আসুন পায়ের বিশেষ যত্ন নিন।

বিশেষ করে সামনে শীত কাল আসতেছে। তাই আর কথা না বাড়িয়ে পড়ে নেওয়া যাক পা ফাটার সমস্যা ও সমাধান। বিশেষ যত্ন নেওয়া লাগবে গোসল এর প্রতি ।

এতে পা ফাটা থেকে মুক্তির প্রথম পন্থা। সাবান ও ধুন্দল এর খোসা দিয়ে গোসল এর সময় ভালভাবে পা এর গরালি পরিস্কার করুন। এর সাথে পিউমিস থাকলে তো আরও ভালো হয়।

পা এর গরালি নরম রাখার চেষ্টা করবেন সব সময়।

পায়ের গোড়ালি নরম বা সতেজ রাখার জন্য তেল বা জেল ব্যবহার করবেন। আবার নারিকেল তেল দিয়ে পায়ের গোড়ালি মেসেজ করে নিতে পারেন।

এতে গোড়ালি অনেক সতেজ  থাকে। পা ফাটা বিরত রাখে। সবথেকে বেশি সতেজ থাকে তিলের তেল বা আমন্ড তেল ভালো। সরিষার তেল ও খারাপ নয়। 

বাইরে থেকে বাড়িতে আসলে

বা শুধু গোসলের সময় নয় বরং হাত ও পা ময়লা হলেই সাবান ও পানি দিয়ে হাত পা ভালোভাবে পরিষ্কার করে  নিন।পরিষ্কার করার পর হাতের কাছে জিনিসগুলো।

যেমন হলুদ, দই,  বেসন, দুধের  সর, দিয়েও গোড়ালি এর যত্ন নিতে পারেন। এছাড়াও ফুড ক্রিম লাগাতে পারেন।এছাড়া ফুড স্কাবার ও ফুড মাক্স ব্যবহার করতে পারেন।

পা ফাটার সকল সমস্যা ও সমাধান;

একটি পানির পাত্রে মৃদ গরম পানি, আধা চা-চামচ নারকেল তেল, সামান্য লবণ দিয়ে ১০ মিনিট সেই পাত্রে পা ডুবিয়ে রাখুন। এবার একটা পিউমিস স্টোন দিয়ে গোড়ালি ও পায়ের পাতা ভালো করে ঘষে ঘষে পরিষ্কার করে নিন।

আর পায়ের ফাটা অংশে ময়লা জমলে দু-তিন চা-চামচ চালের গুঁড়োর সঙ্গে এক টেবিল চামচ মধু ও ভিনেগার মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে লাগিয়ে নিন পায়ের ময়লা যুক্ত ফাটা অংশে। হালকা হাতে কিছুক্ষণ ঘষে ধুয়ে ফেলুন ময়লা গুলো।

তারপর পরিষ্কার শুকনো কাপড়ে মুছে নিন।

তারপর পা ফাটা জায়গায় সতেজ করার জন্য জেল বা ক্রিম লাগান। পা ফাটার সমস্যা একদম কেটে যাবে। পা ফাটা কমার সঙ্গে সঙ্গে পায়ের ত্বক নরম ও মসৃণ করতে হবে না হলে,করে করে নিতে হবে।

শীতে ত্বক নরম রাখতে প্রয়োজন ময়েশ্চার। এর বিকল্প অন্য কিছু এ রকম হতে পারে না। সুন্দর নরম গোড়ালির জন্য বাড়িতে বেসনের সঙ্গে মধু, দুধের স্বর, মধু, হলুদ বাটা মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করতে পারেন।

পা ফাটার সকল সমস্যা ও সমাধান;

গোড়ালিতে এই পেস্ট লাগিয়ে ভেজা হাত দিয়ে ঘষে কিছু ক্ষনের মধ্যেই ধুয়ে ফেলুন। এর পর পরই, পাকা কলা ভালো করে চটকে নিয়ে এতে অল্প মাত্রায় নারকেল তেল ও অল্প মাত্রায় দুধের স্বর মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে ফাটা পায়ের গোড়ালিতে লাগান।

১০ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। গোলাপজল আর, গ্লিসারিন মিশিয়েও লাগাতে পারেন। এতে অনেক টাই আরামদায়ক হতে পারে।

সামান্য গরম পানিতে সামান্য লবণ,

শ্যাম্পু মিশিয়ে পা ডুবিয়ে আরামদায়ক অবস্থান এ আনুন। এতে করে, গোড়ালিতে জমে থাকা ধুলো-ময়লা সহজে পরিষ্কার হয়ে যাবে। এরপর সতেজ ক্রিম, জেল বা লোশন দিয়ে ম্যাসাজ করতে থাকুন। পায়ে অতিরিক্ত মাত্রায় জেল বা ক্রিম থাকলে পাতলা কাপড়ে চেপে মুছে নিন।

ক্রিমের বদলে পেট্রোলিয়াম জেলি এবং এর সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে পা ফাটার অংশে লাগিয়ে যত্ন নিতে থাকুন। পরিশেষে এ সমস্যা থেকে তাড়াতাড়ি পরিত্রাণ পাওয়া যাবে।

ট্যাগস :

পা ফাটার সকল সমস্যা ও সমাধান।

আপডেট সময় : 01:11:57 pm, Saturday, 27 August 2022

পা ফাটার সকল সমস্যা ও সমাধান;

শীতকালে পা ফাটা নতুন কোন সমস্যা নয়। শরীর শুষ্ক যত তাড়াতাড়ি হয় শীতকালে পা যত দ্রুত ফাতে। তাই শীতকাল আসার পূর্বেই শরীরের যত্ন নেওয়া বিশেষভাবে দরকার।

শীতে হাত ও পায়ের টক রুক্ষ হয়ে পরে ময়েশ্চারের অভাবে। সুন্দর কাপড় বা সাজ, দারুন সুন্দর হেয়ার স্টাইল আর বিশেষ অ্যাটিটিউড  ফাটা গোড়ালি দেখা গেলে সব ই শেষ হয়ে যায়।

তাই আসুন পায়ের বিশেষ যত্ন নিন।

বিশেষ করে সামনে শীত কাল আসতেছে। তাই আর কথা না বাড়িয়ে পড়ে নেওয়া যাক পা ফাটার সমস্যা ও সমাধান। বিশেষ যত্ন নেওয়া লাগবে গোসল এর প্রতি ।

এতে পা ফাটা থেকে মুক্তির প্রথম পন্থা। সাবান ও ধুন্দল এর খোসা দিয়ে গোসল এর সময় ভালভাবে পা এর গরালি পরিস্কার করুন। এর সাথে পিউমিস থাকলে তো আরও ভালো হয়।

পা এর গরালি নরম রাখার চেষ্টা করবেন সব সময়।

পায়ের গোড়ালি নরম বা সতেজ রাখার জন্য তেল বা জেল ব্যবহার করবেন। আবার নারিকেল তেল দিয়ে পায়ের গোড়ালি মেসেজ করে নিতে পারেন।

এতে গোড়ালি অনেক সতেজ  থাকে। পা ফাটা বিরত রাখে। সবথেকে বেশি সতেজ থাকে তিলের তেল বা আমন্ড তেল ভালো। সরিষার তেল ও খারাপ নয়। 

বাইরে থেকে বাড়িতে আসলে

বা শুধু গোসলের সময় নয় বরং হাত ও পা ময়লা হলেই সাবান ও পানি দিয়ে হাত পা ভালোভাবে পরিষ্কার করে  নিন।পরিষ্কার করার পর হাতের কাছে জিনিসগুলো।

যেমন হলুদ, দই,  বেসন, দুধের  সর, দিয়েও গোড়ালি এর যত্ন নিতে পারেন। এছাড়াও ফুড ক্রিম লাগাতে পারেন।এছাড়া ফুড স্কাবার ও ফুড মাক্স ব্যবহার করতে পারেন।

পা ফাটার সকল সমস্যা ও সমাধান;

একটি পানির পাত্রে মৃদ গরম পানি, আধা চা-চামচ নারকেল তেল, সামান্য লবণ দিয়ে ১০ মিনিট সেই পাত্রে পা ডুবিয়ে রাখুন। এবার একটা পিউমিস স্টোন দিয়ে গোড়ালি ও পায়ের পাতা ভালো করে ঘষে ঘষে পরিষ্কার করে নিন।

আর পায়ের ফাটা অংশে ময়লা জমলে দু-তিন চা-চামচ চালের গুঁড়োর সঙ্গে এক টেবিল চামচ মধু ও ভিনেগার মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে লাগিয়ে নিন পায়ের ময়লা যুক্ত ফাটা অংশে। হালকা হাতে কিছুক্ষণ ঘষে ধুয়ে ফেলুন ময়লা গুলো।

তারপর পরিষ্কার শুকনো কাপড়ে মুছে নিন।

তারপর পা ফাটা জায়গায় সতেজ করার জন্য জেল বা ক্রিম লাগান। পা ফাটার সমস্যা একদম কেটে যাবে। পা ফাটা কমার সঙ্গে সঙ্গে পায়ের ত্বক নরম ও মসৃণ করতে হবে না হলে,করে করে নিতে হবে।

শীতে ত্বক নরম রাখতে প্রয়োজন ময়েশ্চার। এর বিকল্প অন্য কিছু এ রকম হতে পারে না। সুন্দর নরম গোড়ালির জন্য বাড়িতে বেসনের সঙ্গে মধু, দুধের স্বর, মধু, হলুদ বাটা মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করতে পারেন।

পা ফাটার সকল সমস্যা ও সমাধান;

গোড়ালিতে এই পেস্ট লাগিয়ে ভেজা হাত দিয়ে ঘষে কিছু ক্ষনের মধ্যেই ধুয়ে ফেলুন। এর পর পরই, পাকা কলা ভালো করে চটকে নিয়ে এতে অল্প মাত্রায় নারকেল তেল ও অল্প মাত্রায় দুধের স্বর মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে ফাটা পায়ের গোড়ালিতে লাগান।

১০ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। গোলাপজল আর, গ্লিসারিন মিশিয়েও লাগাতে পারেন। এতে অনেক টাই আরামদায়ক হতে পারে।

সামান্য গরম পানিতে সামান্য লবণ,

শ্যাম্পু মিশিয়ে পা ডুবিয়ে আরামদায়ক অবস্থান এ আনুন। এতে করে, গোড়ালিতে জমে থাকা ধুলো-ময়লা সহজে পরিষ্কার হয়ে যাবে। এরপর সতেজ ক্রিম, জেল বা লোশন দিয়ে ম্যাসাজ করতে থাকুন। পায়ে অতিরিক্ত মাত্রায় জেল বা ক্রিম থাকলে পাতলা কাপড়ে চেপে মুছে নিন।

ক্রিমের বদলে পেট্রোলিয়াম জেলি এবং এর সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে পা ফাটার অংশে লাগিয়ে যত্ন নিতে থাকুন। পরিশেষে এ সমস্যা থেকে তাড়াতাড়ি পরিত্রাণ পাওয়া যাবে।