ঢাকা 11:44 am, Saturday, 4 February 2023

বিটকয়েন কি? বিটকিয়েন কেন ব্যবহার করা হয়?

  • আপডেট সময় : 04:50:03 am, Thursday, 19 May 2022 262 বার পড়া হয়েছে

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার-আপনি কি বিটকিয়েন সম্পর্কে জানতে ইচ্ছুক?তবে, আপনি আজকে জেনে নিন বিটকয়েন কি, বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে,কোথায় বিটকয়েন রাখা হয়, । অনেকেই এই বিটকয়েন সম্পর্কে জানতে অনেক আগ্রহী আছেন। ইন্টারনেটের বোদৈলতের কারণে এখন সকল বিষয় সহজ হয়ে গিয়েছে, বিটকয়েনও তার ব্যতিক্রম নয়। অনেকেই বিটকয়েন সম্পর্কে অনেক কিছু জানেন, আর যারা বিটকয়েন সম্পর্কে কিছুই জানেন না তারা আজকের এই পোষ্ট-টি পড়তে পারেন।

বিটকিয়েন কি?

বিটকয়েন কি? বিটকিয়েন কেন ব্যবহার করা হয়?

বিটকিয়েন হচ্ছে একধরনের ভার্চুয়াল মুদ্রা। অন্যন্য মুদ্রার মত যেমন, টাকা,ডলার, রুপি এরকমের এক ধরনের ডিজিটাল মুদ্রা হচ্ছে বিটকিয়েন। এটি অন্যন্য মুদ্রার থেকে সম্পূর্ণ আলাদা । কারণ এই মুদ্রা অন্যসন মুদ্রার মত দেখা বা স্পর্শ করা যায় না । এই মুদ্রা শুধুমাত্র অনলাইনের মানিব্যাগ হিসাবে কাজ করে থাকে ।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

যেহতু এই মুদ্রা দেখা বা স্পর্শ করা যায় না সেহেতু এই মুদ্রার প্রচলন অনলাইনের কাজে বেশী ব্যবহার হতে দেখা যায়। একটা তথ্য দিয়ে রাখি, বিটকিয়েন ২০০৯ সালে সাতোশি নামক একটা মুদ্রার প্রচলন করে থাকে। পৃথীবির যে কোন ব্যক্তি বিটকিয়েন ব্যবহার করতে পারে , bitcoine নিদিষ্ট কোন মালিক বা ব্যাংক নেই ।

bitcoine কেন ব্যবহার করা হয়?

bitcoine পিয়ার টু পিয়ার নেটওয়ার্ক ভিত্তিক কাজ করে থাকে যার সহজ অর্থ হচ্ছে মানুষ একে অপরের সাথে সরাসরি কোন ব্যাংক ক্রেডিট কার্ড বা কোম্পানীর মাধ্যমে লেনদেন করতে পারবে। আমরা অনেকেই আছি যে অনলাইনের কেনাকাটা করে bitcoine এর মাধ্যমে পেমেন্ট পরিশোধ করে থাকি। বর্তমানে প্রায় অনেকেই অনলাইন ডেভেলপার, নন প্রফিট সংস্থা, ইত্যাদি বিটকিয়েন গ্রহণ করে থাকে যার কারণে বিটকিয়েন এর প্রচলন বেড়েই চলেছে। মূলত বর্তমানে অনলাইন পেমেন্ট,ট্রেডিং বিজনেস,বেটিং এর কাজে বিটকিয়েন বেশী করে থাকে।

বিটকিয়েন মাইনিং কি?

bitcoine মাইনিং বলতে বিটকিয়েন ইনকাম বা উপার্জন করা বোঝানো হয়ে থাকে। bitcoine মাইনিং ব্যাপারটা কিন্তু সম্পূর্ণরূপে আলাদা এবং এ ব্যাপারে আপনার প্রচুর জ্ঞান অবশ্যই থাকতে হবে, bitcoine ইনকাম করার পদ্ধতিকে সাধারণত বলা হয় বিটকয়েন মাইনিং।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

বিটকিয়েন মানিব্যাগ কি?

আমরা যারা অনলাইনে বিটকিয়েন ইলেকট্রনিকভাবে সংরক্ষণ করে থাকি আর বিটকিয়েন সংরক্ষণের এর জন্য বিশাল একটি মানিব্যাগের প্রয়োজন । বিভিন্ন ধরনের ওয়ালেট আছে যেখানে বিটকিয়েন মানিব্যাগ সংরক্ষণ করা সম্ভব, তার মধ্য মোবাইল ওয়ালেট, ডেস্কটপ ওয়ালেট, অনলাইন বা ওয়েব ভিত্তিক ওয়ালেট ইত্যাদি। তবে, অনলাইনে বেশ কিছু বিটকয়েন ভিত্তিক ওয়েবসাইট আছে, যে সাইটগুলোতে বিটকয়েন জমা রাখা যায়। তার মধ্য জনপ্রিয় দুইটি ওয়েবসাইট হচ্ছেঃ ব্লকচেইন এবং কয়েনবেজ।

কিভাবে বিটকয়েন আয় করা যায়?

অনেকেরই মনে এধরনের প্রশ্ন এসে থাকে যে কিভাবে অনলাইন থেকে বিটকয়েন আয় করা সম্ভব? তবে, অনেকের মনে এই ধরনের কৈতুহল প্রশ্ন আসলেও বাস্তবিক অর্থে অনলাইন থেকে বিটকয়েন আয় করা সম্ভব। সাধারণত তিনটি উপায়ে বিটকয়েন আয় করা সম্ভব । সে সম্পর্কে আলোচনা করা হলোঃ
সাধারনত তিনটি উপায়ে বৈধভাবে অনলাইন থেকে বিটকয়েন আয় করা সম্ভব ।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

১. প্রথম উপায় হচ্ছে যদি আপনার কাছে টাকা থাকে, তবে আপনি সরাসরি $৯৯৯ টাকা প্রদান করে বিভিন্ন বিটকয়েন ব্যবসা করে এমন ওয়েবসাইট থেকে বিটকয়েন কিনে আপনার গোপনীয় ওয়ালাটে জমা রাখুন। এরপর কিছুদিন অপেক্ষা করুন এরপর বিটকয়েনের দাম যখন অনেক হারে বৃদ্ধি পাবে তখন আপনি আপনার ওয়ালাট থেকে অন্য কারো কাছে ভালো দামে বিক্রি করে দিতে পারেন। আপনি চাইলে বিটকয়েনের ক্ষুদ্রতম ইউনিট “ সাতোশি” কিনে আপনার ওয়ালাটে জমা করে রাখতে পারেন।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

২. দ্বিতীয় উপায় হচ্ছে আপনি যদি কারো কাছে অনলাইনের মাধ্যমে পন্য বিক্রি করে থাকেন, এবং তখন যদি তার ওয়ালাটে বিটকয়েন থাকে, তবে আপনি তার কাছ থেকে বিটকয়েন নিয়ে পণ্য বিক্রি করে দিতে পারেন , এবং আপনি তার কাছ থেকে বিটকয়েন নিয়ে আপনার বিটকয়েন ওয়ালাটে জমা করে রাখতে পারেন । এবং পরবর্তী সময়ে ভালো দামে বিটকয়েন বিক্রি করে দিতে পারেন।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

৩.তৃতীয় উপায় হচ্ছে বিটকয়েন মাইনিং । এ ব্যাপারে আপনার প্রচুর জ্ঞান অবশ্যই থাকতে হবে, বিটকয়েন ইনকাম করার পদ্ধতিকে সাধারণত বলা হয় বিটকয়েন মাইনিং।

বাংলাদেশে ১ বিটকয়েন সমান কত টাকা
বর্তমানে বাংলাদেশে ১ বিটকয়েন সমান ২৫ লক্ষ ৩১ হাজার ৭৮৭ টাকা । তবে,প্রতিনিয়ত বিটকয়েনের দাম পরিবর্তন হতে পারে ।

শেষ কথাঃ

আজ আমরা বিটকয়েন সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানানোর চেষ্টা করেছি। যেমন, নিন বিটকয়েন কি, বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে,কোথায় বিটকয়েন রাখা হয়, বাংলাদেশে বিটকয়েনের দাম ইত্যাদি। আশা করি আপনি এই আর্টিকেল টি পড়ে বিটকয়েন সম্পর্কে নতুন কিছু জানতে পেরেছেন।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন আর আমাদের সাইটের সাথে থাকবেন নতুন নতুন পোস্ট পেতে এবং আপনাদের বন্ধুদের শেয়ার করে দিবেন পোস্টটি ভালো লাগলে । আমার আর অন্যান্য পোস্ট:

বাংলাদেশের সেরা ৫ টি মোবাইল ফোন

ধন্যবাদ সবাইকে

বিটকয়েন কি? বিটকিয়েন কেন ব্যবহার করা হয়?

আপডেট সময় : 04:50:03 am, Thursday, 19 May 2022

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার-আপনি কি বিটকিয়েন সম্পর্কে জানতে ইচ্ছুক?তবে, আপনি আজকে জেনে নিন বিটকয়েন কি, বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে,কোথায় বিটকয়েন রাখা হয়, । অনেকেই এই বিটকয়েন সম্পর্কে জানতে অনেক আগ্রহী আছেন। ইন্টারনেটের বোদৈলতের কারণে এখন সকল বিষয় সহজ হয়ে গিয়েছে, বিটকয়েনও তার ব্যতিক্রম নয়। অনেকেই বিটকয়েন সম্পর্কে অনেক কিছু জানেন, আর যারা বিটকয়েন সম্পর্কে কিছুই জানেন না তারা আজকের এই পোষ্ট-টি পড়তে পারেন।

বিটকিয়েন কি?

বিটকয়েন কি? বিটকিয়েন কেন ব্যবহার করা হয়?

বিটকিয়েন হচ্ছে একধরনের ভার্চুয়াল মুদ্রা। অন্যন্য মুদ্রার মত যেমন, টাকা,ডলার, রুপি এরকমের এক ধরনের ডিজিটাল মুদ্রা হচ্ছে বিটকিয়েন। এটি অন্যন্য মুদ্রার থেকে সম্পূর্ণ আলাদা । কারণ এই মুদ্রা অন্যসন মুদ্রার মত দেখা বা স্পর্শ করা যায় না । এই মুদ্রা শুধুমাত্র অনলাইনের মানিব্যাগ হিসাবে কাজ করে থাকে ।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

যেহতু এই মুদ্রা দেখা বা স্পর্শ করা যায় না সেহেতু এই মুদ্রার প্রচলন অনলাইনের কাজে বেশী ব্যবহার হতে দেখা যায়। একটা তথ্য দিয়ে রাখি, বিটকিয়েন ২০০৯ সালে সাতোশি নামক একটা মুদ্রার প্রচলন করে থাকে। পৃথীবির যে কোন ব্যক্তি বিটকিয়েন ব্যবহার করতে পারে , bitcoine নিদিষ্ট কোন মালিক বা ব্যাংক নেই ।

bitcoine কেন ব্যবহার করা হয়?

bitcoine পিয়ার টু পিয়ার নেটওয়ার্ক ভিত্তিক কাজ করে থাকে যার সহজ অর্থ হচ্ছে মানুষ একে অপরের সাথে সরাসরি কোন ব্যাংক ক্রেডিট কার্ড বা কোম্পানীর মাধ্যমে লেনদেন করতে পারবে। আমরা অনেকেই আছি যে অনলাইনের কেনাকাটা করে bitcoine এর মাধ্যমে পেমেন্ট পরিশোধ করে থাকি। বর্তমানে প্রায় অনেকেই অনলাইন ডেভেলপার, নন প্রফিট সংস্থা, ইত্যাদি বিটকিয়েন গ্রহণ করে থাকে যার কারণে বিটকিয়েন এর প্রচলন বেড়েই চলেছে। মূলত বর্তমানে অনলাইন পেমেন্ট,ট্রেডিং বিজনেস,বেটিং এর কাজে বিটকিয়েন বেশী করে থাকে।

বিটকিয়েন মাইনিং কি?

bitcoine মাইনিং বলতে বিটকিয়েন ইনকাম বা উপার্জন করা বোঝানো হয়ে থাকে। bitcoine মাইনিং ব্যাপারটা কিন্তু সম্পূর্ণরূপে আলাদা এবং এ ব্যাপারে আপনার প্রচুর জ্ঞান অবশ্যই থাকতে হবে, bitcoine ইনকাম করার পদ্ধতিকে সাধারণত বলা হয় বিটকয়েন মাইনিং।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

বিটকিয়েন মানিব্যাগ কি?

আমরা যারা অনলাইনে বিটকিয়েন ইলেকট্রনিকভাবে সংরক্ষণ করে থাকি আর বিটকিয়েন সংরক্ষণের এর জন্য বিশাল একটি মানিব্যাগের প্রয়োজন । বিভিন্ন ধরনের ওয়ালেট আছে যেখানে বিটকিয়েন মানিব্যাগ সংরক্ষণ করা সম্ভব, তার মধ্য মোবাইল ওয়ালেট, ডেস্কটপ ওয়ালেট, অনলাইন বা ওয়েব ভিত্তিক ওয়ালেট ইত্যাদি। তবে, অনলাইনে বেশ কিছু বিটকয়েন ভিত্তিক ওয়েবসাইট আছে, যে সাইটগুলোতে বিটকয়েন জমা রাখা যায়। তার মধ্য জনপ্রিয় দুইটি ওয়েবসাইট হচ্ছেঃ ব্লকচেইন এবং কয়েনবেজ।

কিভাবে বিটকয়েন আয় করা যায়?

অনেকেরই মনে এধরনের প্রশ্ন এসে থাকে যে কিভাবে অনলাইন থেকে বিটকয়েন আয় করা সম্ভব? তবে, অনেকের মনে এই ধরনের কৈতুহল প্রশ্ন আসলেও বাস্তবিক অর্থে অনলাইন থেকে বিটকয়েন আয় করা সম্ভব। সাধারণত তিনটি উপায়ে বিটকয়েন আয় করা সম্ভব । সে সম্পর্কে আলোচনা করা হলোঃ
সাধারনত তিনটি উপায়ে বৈধভাবে অনলাইন থেকে বিটকয়েন আয় করা সম্ভব ।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

১. প্রথম উপায় হচ্ছে যদি আপনার কাছে টাকা থাকে, তবে আপনি সরাসরি $৯৯৯ টাকা প্রদান করে বিভিন্ন বিটকয়েন ব্যবসা করে এমন ওয়েবসাইট থেকে বিটকয়েন কিনে আপনার গোপনীয় ওয়ালাটে জমা রাখুন। এরপর কিছুদিন অপেক্ষা করুন এরপর বিটকয়েনের দাম যখন অনেক হারে বৃদ্ধি পাবে তখন আপনি আপনার ওয়ালাট থেকে অন্য কারো কাছে ভালো দামে বিক্রি করে দিতে পারেন। আপনি চাইলে বিটকয়েনের ক্ষুদ্রতম ইউনিট “ সাতোশি” কিনে আপনার ওয়ালাটে জমা করে রাখতে পারেন।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

২. দ্বিতীয় উপায় হচ্ছে আপনি যদি কারো কাছে অনলাইনের মাধ্যমে পন্য বিক্রি করে থাকেন, এবং তখন যদি তার ওয়ালাটে বিটকয়েন থাকে, তবে আপনি তার কাছ থেকে বিটকয়েন নিয়ে পণ্য বিক্রি করে দিতে পারেন , এবং আপনি তার কাছ থেকে বিটকয়েন নিয়ে আপনার বিটকয়েন ওয়ালাটে জমা করে রাখতে পারেন । এবং পরবর্তী সময়ে ভালো দামে বিটকয়েন বিক্রি করে দিতে পারেন।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

৩.তৃতীয় উপায় হচ্ছে বিটকয়েন মাইনিং । এ ব্যাপারে আপনার প্রচুর জ্ঞান অবশ্যই থাকতে হবে, বিটকয়েন ইনকাম করার পদ্ধতিকে সাধারণত বলা হয় বিটকয়েন মাইনিং।

বাংলাদেশে ১ বিটকয়েন সমান কত টাকা
বর্তমানে বাংলাদেশে ১ বিটকয়েন সমান ২৫ লক্ষ ৩১ হাজার ৭৮৭ টাকা । তবে,প্রতিনিয়ত বিটকয়েনের দাম পরিবর্তন হতে পারে ।

শেষ কথাঃ

আজ আমরা বিটকয়েন সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানানোর চেষ্টা করেছি। যেমন, নিন বিটকয়েন কি, বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে,কোথায় বিটকয়েন রাখা হয়, বাংলাদেশে বিটকয়েনের দাম ইত্যাদি। আশা করি আপনি এই আর্টিকেল টি পড়ে বিটকয়েন সম্পর্কে নতুন কিছু জানতে পেরেছেন।

বিটকয়েন কি এর ব্যবহার

সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন আর আমাদের সাইটের সাথে থাকবেন নতুন নতুন পোস্ট পেতে এবং আপনাদের বন্ধুদের শেয়ার করে দিবেন পোস্টটি ভালো লাগলে । আমার আর অন্যান্য পোস্ট:

বাংলাদেশের সেরা ৫ টি মোবাইল ফোন

ধন্যবাদ সবাইকে